মেইন ম্যেনু

প্রেমিক বিয়ে করতে রাজি না হওয়ায় স্কুলছাত্রীর আত্মহত্যা

বগুড়ার পল্লীতে প্রেমিক বিয়ে করতে রাজি না হওয়ায় এক স্কুলছাত্রী গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছে।

বৃহস্পতিবার রাতে শহরতলির চালিতবাড়ি আনন্দবাজার গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

শুক্রবার দুপুরে পুলিশ লাশ উদ্ধার করে মর্গে পাঠায়। আত্মহত্যা করা ওই স্কুলছাত্রীর নাম তাসনিয়া খাতুন (১৫)। সে মাটিডালি এসওএস হারম্যান মেইনার স্কুল ও কলেজের নবম শ্রেণির ছাত্রী ছিল।

এদিকে ঘটনার পর থেকে প্রেমিক আরাফাত হোসেন সপরিবারে বাড়ি থেকে পালিয়ে গেছে।

বগুড়া সদরের শাখারিয়া ইউনিয়নের ৭ নম্বর ওয়ার্ডের সদস্য পল্লী চিকিৎসক মঞ্জুরুল হাসান মঞ্জু জানান, চালিতাবাড়ি আনন্দবাজার গ্রামের মৃত ফজলু প্রামানিকের মেয়ে তাসনিয়া খাতুনের সঙ্গে প্রায় এক বছর আগে একই গ্রামের নেছার উদ্দিন মহুরির ছেলে কলেজ ছাত্র আরাফাতের প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। উভয় পরিবার জানাজানি হলে গ্রাম্য সালিশে মীমাংসা করা হয়। সম্প্রতি তাদের মধ্যে সম্পর্ক আবার গভীর হয়। শারীরিক সম্পর্ক গড়ে ওঠে। তাসনিয়া বিয়ের জন্য আরাফাতের ওপর চাপ সৃষ্টি করে। কিন্তু আরাফাত বিয়ে করতে অস্বীকার করলে সে অভিমান করে বৃহস্পতিবার রাতে নিজ ঘরে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করে।

মঞ্জু আরও জানান, আত্মহত্যার ঘটনা জানাজানি হলে প্রেমিক আরাফাত ও তার পরিবার বাড়ি ছেড়ে পালিয়ে গেছে।

সদর থানার ওসি (তদন্ত) আসলাম আলী জানান, বয়সের কারণে অভিভাবকরা বিয়ে দিতে রাজি না হওয়ায় অভিমানে স্কুল ছাত্রী তাসনিয়া আত্মহত্যা করেছে। প্রেমিকের সঙ্গে কোনো দৈহিক সম্পর্ক বা বিয়ে অস্বীকার করার মতো ঘটনা ঘটেনি।