মেইন ম্যেনু

প্রেমিক যুগলের বর্ষবরণ!

জ্ঞাপনে ছেয়ে গেছে বৈশাখের আসল রূপ। মানুষের মনে উৎসবের আমেজ আছে, শহর -গ্রামে সেই উৎসব চলছে জোরেশোরে। কিন্তু এ উৎসবে তরুণ- তরুণীদের কর্মকাণ্ডে কেউ খুশি, আবার কেউ বিরক্ত।

সরেজমিনে দেখা যায়, সকাল থেকে রাজধানীর সব এলাকায় তরুণ- তরুণীদের উপস্থিতি। কথা হয় বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রী নিপার সাথে।

তিনি বলেন, আমার পছন্দের মানুষের সাথে আজকে ঘুরছি, এ দিনটি আমার জন্য একটি স্পেশাল দিন। এর আগে আমি এরকম দিন কখনও পাইনি। আমরা সারাদিন ঘুরব।

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র অমিত বলেন, আজকে আনেক গরম তাই খুব বেশি ঘুরিনি। বন্ধু বান্ধবীদের নিয়ে বাসায় আড্ডা দিব। আর সুযোগ হলে রাতে কোন ভাল রেস্টুরেন্টে যাব। অন্য দিনগুলোর চেয়ে একটু আলাদা কাটল। পহেলা বৈশাখ মানেই বাঙালির প্রাণের উৎসব।

ধানমনণ্ডির এক মুদি দোকানের মালিক বলেন, পহেলা বৈশাখ সবাই পালন করবে, আমরাও করছি। কিন্তু কিছু ছেলে মেয়ে এটাকে খারাপ দিকে নিয়ে যাচ্ছে। আমার দোকানের সামনে রাস্তায় দেখছি অনেক ছেলে মেয়ে বেহায়াপনা করছে, রিকশায় প্রকাশ্য জড়িয়ে ধরছে। অনেকেই পরিবার-সন্তান নিয়ে বের হয়েছেন তাদের সামনে এরকম ঘটনা হলে তারা বিব্রতকর পরিস্থিতির মুখে পড়বে।

এদিকে, নিজেদের নিরাপত্তার বিধান নিজেরাই করবেন, এই মনোবল নিয়ে রাস্তায় নেমে আসা হাজারও নারী মঙ্গল শোভাযাত্রায় অংশ নিয়ে নেচে গেয়ে ‘হেফাজতে ইসলামীর দাবির’ প্রতিবাদ জানিয়েছেন।

এর আগে, সপ্তাহজুড়ে ‘ফতোয়া’ দিয়েছে হেফাজতে ইসলামসহ ইসলামী দলগুলো। সর্বশেষ জীবজন্তুর মূর্তি নিয়ে মঙ্গল শোভাযাত্রা, মুখে উল্কি আঁকা এবং নারী-পুরুষের অবাধ বিচরণ ইসলাম সম্মত নয় ও বিজাতীয় সংস্কৃতি বলে বিবৃতি দেওয়ার পাশাপাশি প্রচার চালানো হয় ফেসবুকসহ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলোতে।