মেইন ম্যেনু

প্রেমের কারণে সাকা-মুজাহিদের ফাঁসি!

পাকিস্তানের প্রতি ভালোবাসার কারণেই মানবতাবিরোধী অপরাধে সালাউদ্দিন কাদের (সাকা) চৌধুরী ও আলী আহসান মোহাম্মাদ মুজাহিদকে মৃত্যুদণ্ড দেওয়া হয়েছে বলে মন্তব্য করেছে দেশটির দুটি রাজনৈতিক দল। শুধু তাই নয়, দল দুটির পক্ষ থেকে বাংলাদেশের বিচারব্যবস্থা নিয়েও আপত্তিকর মন্তব্য করা হয়েছে।

pakistan1448257325

এ দল দুটি হচ্ছে পাকিস্তান মুসলিম লীগ (কিউ) ও পাকিস্তান জামায়াতে ইসলাম।

সাকা ও মুজাহিদ দুজনকেই পাকিস্তানপ্রেমী হিসেবে উল্লেখ করেছেন পাকিস্তান জামায়াতে ইসলামের নেতা সিরাজুল হক। রোববার এক সমাবেশে তিনি বলেন, মৃত্যুদণ্ড কার্যকর হওয়া দুই নেতার একমাত্র অপরাধ ছিল পাকিস্তান ও এর আদর্শ এবং দেশটির প্রতি প্রেম। এই প্রেমের কারণেই তাদের ফাঁসি দেওয়া হয়েছে।

সাকা-মুজাহিদের মৃত্যুদণ্ডে পাকিস্তান সরকার কেন নিশ্চুপ ভূমিকা পালন করছে, সে ‍বিষয়ে সিরাজুল হক বিস্ময় প্রকাশ করেন। তার দাবি, পাকিস্তান, ভারত ও বাংলাদেশের মধ্যে যে ত্রিপক্ষীয় চুক্তি হয়েছিল, এই মৃত্যুদণ্ড সেই চুক্তির লঙ্ঘন।

সিরাজুল হক বলেন, শেখ হাসিনা সরকার পাকিস্তান-সমর্থক লোকদের একে একে সরিয়ে দিচ্ছে। জামায়াতে ইসলামীর বেশ কয়েকজন নেতাকে ইতিমধ্যে মৃত্যুদণ্ড দেওয়া হয়েছে। কিন্তু তারপরও ইসলামাবাদের শাসকরা চুপ করে আছে।

সাকা-মুজাহিদ পাকিস্তানের জন্যই মৃত্যুবরণ করেছেন এবং বাংলাদেশ সরকারের কাছে প্রাণভিক্ষা চাননি, উল্লেখ করে এই জামায়াত নেতা বলেন, এই বীরেরা বাংলাদেশে শাসনরত ভারতীয় দালালদের কাছে প্রাণভিক্ষার চেয়ে মৃত্যুকে শ্রেয় হিসেবে গ্রহণ করেছেন।

সাকা চৌধুরীকে ব্যক্তিগত ভালো বন্ধু হিসেবে দাবি করেছেন পাকিস্তান মুসলিম লীগের (কিউ) মহাসচিব ও পার্লামেন্টের সদস্য মুশায়িদ হুসেইন সাঈদ। তিনি সাকা চৌধুরীর মৃত্যুদণ্ডকে বিচার বিভাগীয় হত্যা বলে মন্তব্য করেছেন। তিনি বলেন, এই আদালত তাকে এমন অপরাধে দণ্ড দিয়েছেন, যে অপরাধে তিনি সংশ্লিষ্ট ছিলেন না।