মেইন ম্যেনু

প্রেমের টানে রাজপ্রাসাদ ছাড়লেন জাপানের রাজকুমারী

প্রেমের টানে অনেকেই সাত সাগর তের নদী পরি দিয়েছে। অনেকেই অনেক ধরণের শাস্তিও মাথা পেতে নিয়েছে। তেমনি একটি দৃষ্টান্ত রাখলেন জাপানের রাজকুমারী মাকো। প্রেমের টানে রাজপ্রাসাদের বিলাস ছেড়ে আমজনতার স্রোতে ভেসে ছোট্ট কুঁড়েতে যেতেই মনস্থির করেছেন। বিয়ে করতে চলেছেন এক সাধারণ মধ্যবিত্ত পরিবারের ছেলেকে। পাত্র কেই কোমুরো রাজকুমারী মাকোর কলেজ জীবনের একসময়কার সহপাঠী এবং বহু দিনের প্রেমিকও।

কিন্তু জাপানের বর্তমান সম্রাট আকিহিতোর নাতনি মাকো পাকা সিদ্ধান্তই নিয়েছেন। আকিহিতোর (৮৩) চার নাতি-নাতনির মধ্যে মাকো সবার বড়। বাকি দুই জন নাতনি ও একজন নাতি।

আকিহিতো যেমন রাজদায়িত্ব আর পালন না করার পাকা সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন, ঠিক তেমনিই রাজকুমারী মাকোও তার বিয়ের পাকা সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। বয়সের কারণে রাজ দায়িত্ব ঠিকঠাকভাবে পালন করা কঠিন হয়ে যাওয়ার আশঙ্কা থেকে গত বছর অগাস্টে অবসরে যাওয়ার ইচ্ছার কথা জানান আকিহিতো। জাপানের রাজ পরিবারের গত দুই শতাব্দীর ইতিহাসে যা প্রথম।

রাজবংশের বাইরে সাধারণ পরিবারের কাউকে বিয়ে করলে তাকে রাজপ্রাসাদের সবকিছু এমনকি সম্পত্তির অংশও ছেড়ে দিতে হবে। এটিই জাপানের রাজবংশের নিয়ম।

জাপানের সংবিধান অনুযায়ী, রাজপরিবারের শুধুমাত্র পুরুষ সদস্যরাই সিংহাসনের উত্তরাধিকার হন। যদিও তরুণ প্রজন্মের একটি অংশ এখন বলছে, রাজদণ্ড শুধুই রাজবংশের পুরুষদের হাতে নয়, নারীদের হাতেও যাওয়া উচিত।

কিন্তু রাজবংশের ক্ষমতার পরম্পরা নারীদের ওপরও বর্তাতে পারে কি না, সে ব্যাপারে এখনও কোনও সিদ্ধান্ত নিতে পারেনি জাপান সরকার।



« (পূর্বের সংবাদ)



মন্তব্য চালু নেই