মেইন ম্যেনু

প্রেমের প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান: কলেজছাত্রীকে চাপাতি দিয়ে কোপাল বখাটে

প্রেমের প্রস্তাব প্রত্যাখান করায় জান্নাতুল আক্তার (১৭) নামের এক কলেজছাত্রীকে বাসা থেকে নিয়ে কুপিয়েছে ইমন নামের এক বখাটে। মঙ্গলবার বিকেলে নেত্রকোনার কেন্দুয়া পৌর শহরের শান্তিনগর এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

জান্নাতুল আক্তার পৌর শহরের কেন্দুয়া পারভীন সিরাজ মহিলা কলেজে এইচএসসি দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী। জান্নাতুল বর্তমানে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।

স্থানীয় বাসিন্দা ও পুলিশ সূত্রে জানা যায়, কিশোরগঞ্জ জেলার ইটনা থানার পাথাইরকান্দি গ্রামের মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল লতিফের মেয়ে জান্নাতুল কেন্দুয়ার পারভীন সিরাজ মহিলা কলেজে ভর্তি হয়। উপজেলার পৌর এলাকায় শান্তিনগর মহল্লার একটি ভাড়া বাসায় থেকে কলেজে পড়াশোনা করত সে। একই এলাকার ইমন (২২) নামের এক যুবক তাঁকে প্রেমের প্রস্তাব দেয়। ইমন কেন্দুয়া উপজেলার মোজাফফরপুর ইউনিয়নের গগডা (ভুঁইয়াপাড়া) গ্রামের বাসিন্দা।

দুদিন ধরে ইমন শান্তিনগর এলাকায় তাঁর বোনের স্বামী সোহাগের বাসায় অবস্থান করছিল। সেখানে থেকে ইমন জান্নাতুলকে কুপ্রস্তাব দিচ্ছিল। মঙ্গলবার বিকেলে কৌশলে জান্নাতুলকে বাসা থেকে ডেকে নেয় এবং প্রেমের প্রস্তাব দেয়। প্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় বখাটে ইমন জান্নাতুলকে চাপাতি দিয়ে কুপিয়ে জখম করে।

স্থানীয় বাসিন্দারা আহত ওই ছাত্রীকে রক্তাক্ত অবস্থায় উদ্ধার করে প্রথমে কেন্দুয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যায়। জান্নাতুলের অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় চিকিৎসকরা তাঁকে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠিয়ে দেন।

এ ঘটনার খবর পেয়ে সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার (কেন্দুয়া সার্কেল) সোহান সরকার ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। পুলিশ ইমনের ব্যবহৃত চাপাতি, ওই ছাত্রীর মাথার কাটা চুল,তাঁর ছেঁড়া জামা, রক্তাক্ত জুতা উদ্ধার করে। তবে বখাটে ইমনকে আটক করতে পারেনি পুলিশ।

এ ব্যাপারে সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার (কেন্দুয়া সার্কেল) সোহান সরকার জানান, সম্ভবত প্রেমঘটিত বিষয় নিয়েই এ ঘটনাটি ঘটেছে। বখাটে ইমনকে আটকে অভিযান চলছে।






মন্তব্য চালু নেই