মেইন ম্যেনু

প্রেম বিরহী মাহি এবার যা লিখলেন

গানই তো আছে ‘প্রেম কখনো মধুর কখনো বা বেদনা বিদুর। কখনো হাসায়। কখনো কাঁদায়’। নানা ভাবে সজ্ঞায়িত হয়েছে প্রেম। কেউ আবার লিখেছেন, ‘ভালোবাসা যত বড় জীবন তত বড় নয়। তোমায় নিয়ে হাজার বছর বাঁচতে বড় ইচ্ছে হয়’।

আসলে প্রেম মানে না শাসন-বারণ। প্রেম বাস্তবতা দিয়ে হয় না। পাগলামি না থাকলে আর আবেগি না হলে প্রেমিক হওয়া যায় না। তাই তো প্রেমে পড়লে সকলেই হয়ে উঠে অবুঝ। আর বিরহে কাতর। ছন্নছাড়া হয় জীবন। ঢাকাই সিনেমায় সাম্প্রতিক সময়ে শীর্ষে থাকা মাহিয়া মাহিও একই।

রিলের জীবনে নয়। রিয়েল জীবনে তিনি প্রেমে পড়েছিলেন। আর যে প্রেম তাকে এখনো করে তোলেন বিরহীনি। তেমনটাই ধরা পড়লো মাহির একটি স্ট্যাটাসে।

মাহি তার স্ট্যাটাসে লিখেছেন, ‘ভয়ে ভয়েই থাকতাম প্রতিটা মুহুর্ত, যদি তোমার প্রেমে পরে যাই? যদি মায়া বসে যায়? তারপর রোজ তোমার পাগলামি দেখে নিজেকে হুমকি দিতাম অনবরত ‘একদম তাকাবিনা তার দিকে, একদম দেখবিনা তার হাসি, একদম প্রেমে পড়া যাবেনা কিন্তু…’

‘কতবার যে তোমার ফোন নম্বর আর ফেইসবুক আইডিটা ব্লক করেছি তার কোনো ঠিক নাই…শুধু একটাই ভয়ে ‘যদি আমি প্রেমে পরে যাই, যদি তুমি চলে যাও আর তোমাকে ভুলতে না পারি?’

তারপর অনেকদিন পরে হঠাৎ একদিন আবিষ্কার করলাম, তোমার নম্বর টা আমার ফোন এ আনব্লক করা, ফেইসবুক এর আইডিটাও আনব্লক এবং সেখানে দিব্বি তুমি আমার ফ্রেন্ড লিস্ট এ আছ এবং মাঝখানে অনেকগুলো দিন কেটে গেছে, যেদিনগুলোতে আমরা কাটিয়েছি অনেকগুলো সুন্দর মুহূর্ত, আমি দেখেছি অদ্ভুত সেই পাগল করা হাসি…অনেকগুলো রাত কে আমি দেখেছি ভোর হয়ে যেতে তোমার সাথে ফোন এর লাইন এ থাকতে থাকতে…কি অদ্ভুত ভালোলাগায় কেটে গেছে দিনগুলো…কিযে স্বর্গ ছিল!

মজার বেপার হলো, আমি যে ভয়টা পেয়েছিলাম ঠিক সেটাই হলো…আমি কখন তোমার প্রেমে পড়েছিলাম টেরই পাইনি আর এখন তোমাকে আর ভুলতে পারছিনা…এখন ঠিক রাত ১২:৪৫ বাজে, ওপাশটায় তুমি দিব্বি হয়ত তোমার রুম এ অন্য কাওকে ফোন এর লাইন রেখে কোনো এক ইংলিশ মুভি দেখতে ব্যস্ত অথবা হয়ত গাড়ির ফ্রন্ট সিট এ কাউকে বসিয়ে লং ড্রাইভ এ কোনো এক বাংলা রোমান্টিক গান শুনছ…আর এপাশ্টাতে আমি, যে কিনা ডানপিটে’র মত সারা দুনিয়া ঘুরে বেড়াতাম সেই আমি ঘরের কোনে বসে তোমার দেওয়া উপহারের উপর পড়ে থাকা ধুলো মুছে যাচ্ছি আর মুছে যাচ্ছি…’