মেইন ম্যেনু

ফরিদপুরের রায়েরচর প্রাইমারি স্কুলের পুরাতন ভবনটি ঝুকিপূর্ণ: শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা আতংকে

ফরিদপুরের সালথা উপজেলার সোনাপুর ইউনিয়নের রায়েরচর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ভবনটি চরম ঝুকিপূর্ণ হয়ে পড়েছে।
জানা যায়, ১৯৭৩ ইং সালে এই বিদ্যালয়টি স্থাপিত হয়। প্রথমে টিনের ঘরে শুরু হয় শিক্ষার্থীদের পাঠদান। ১৯৯৪ ইং সালে স্থানীয় সরকার প্রকৌশলী অধিদপ্তর ৪ লক্ষ ২০ হাজার টাকা ব্যায়ে এ ভবনটি নির্মাণ করেছিলো। বর্তমানে এই ভবনটি একেবারেই অকেজো হয়ে পড়েছে। ভবনের ভিতরে-বাহিরের দেওয়াল ধ্বসে পড়েছে।
তাছাড়া ২৪৯ জন শিক্ষার্থীদের পাঠদানের জন্য ভবনটিতে রয়েছে ভাঙ্গাচুরা ৩টি মাত্র কক্ষ।

বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক আবুল কাসেম জানান, বিদ্যালয়ের জরাজীর্ণ ভবনে ঝুকির মধ্যে দিয়ে শিক্ষার্থীদের পাঠদান চলছে। ভবনটির দেওয়াল যে ভাবে ধ্বসে পড়ছে তাতে আমরা শিক্ষক ও শিক্ষার্থীরা আতংকের মধ্যে রয়েছি। বিদ্যালয় পরিচালনা পর্ষদের সভাপতি ছিদ্দিক মাতুব্বার বলেন, শিশু শ্রেনী থেকে ৫ম শ্রেনী পর্যন্ত বিদ্যালয়ের অবুঝ শিশুরা এই জরাজীর্ণ ভবনের ব্যপারে কিছুই জানে না। কিন্তু ভবনটি যে ভাবে ভেঙ্গে যাচ্ছে, তাতে বড় ধরনের বিপদ হওয়ার আশংকা রয়েছে। আমরা বিদ্যালয়ের নতুন ভবনের জন্য কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি আকর্ষন করছি।

এব্যাপারে উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার কৃষ্ণ চন্দ্র চক্রবর্তী বলেন, আমরা জরাজীর্ণ বিদ্যালয় গুলো পরিদর্শন করেছি। ইতি মধ্যেই রায়েরচর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়, পুরুরা সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়, ইউসুফদিয়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়, যগন্নাথদি সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়, উজিরপুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়, রাঙ্গারদিয়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়, সিংহপ্রতাপ সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়, যদুনন্দী সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়, যদুনন্দী পশ্চিমপাড়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় ও বড় খারদিয়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়সহ কয়েকটি ভবনের জন্য উপজেলা প্রকৌশলীর নিকট তথ্যসহ তালিকা পেশ করা হয়েছে।
খুব শিঘ্রই বিদ্যালয়গুলো নতুন ভবন পেয়ে যাবে বলে আশাকরি।