মেইন ম্যেনু

ফরিদপুরে সড়ক দুর্ঘটনায় নারী ও শিশুসহ পাঁচজন নিহত

ফরিদপুরে দুটি বাসের সংঘর্ষে নারী ও শিশুসহ পাঁচজন নিহত হয়েছেন। এছাড়া আহত হয়েছে আরও ৬৫ জন। গতকাল বুধবার বিকেল তিনটার দিকে ঢাকা-বরিশাল মহাসড়কে ফরিদপুর সদর উপজেলার গেরদা ইউনিয়নের জামতলা নামক স্থানে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

টেকেরহাট থেকে ফরিদপুরগামী রাব্বী পরিবহন নামের একটি মিনিবাস ফরিদপুর থেকে টেকেরহাটগামী মৃধা ডিলাক্স নামের অপর একটি মিনিবাসের সাথে সামনের দিক থেকে সংঘর্ষ হলে এ দুর্ঘটনা ঘটে। দুর্ঘটনার ফলে টেকেরহাটগামী মৃধা ডিলাক্স বাসটি রাস্তার ডানপাশের খাদে পড়ে যায়।

এ দুর্ঘটনায় মৃধা ডিলাক্সের সুপারভাইজার ফরিদপুর সদরের কাফুরা এলাকার করুন দত্ত (৪৫), গোপালগঞ্জের মুকসুদপুরের মহারাজপুর এলাকার হাবিব শেখ (৫০) এবং আনুমানিক ৩৭ বছর বয়সী অজ্ঞাতনামা এক নারী ঘটনাস্থলেই নিহত হয়। হাসপাতালে আনার পর মারা যান আনুমানিক ৪৫ বছর বয়সী এক নারী ও দুই বছর বয়সী এক শিশু মারা যায়।

ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী জামতলার এলাকার লিয়াকত হোসেন জানান, একটি নসিমনকে সাইড দিতে গিয়ে দুটি বাসের মুখোমুখি সংঘর্ষ হলে এ দুর্ঘটনা ঘটে। এর ফলে একটি বাস রাস্তার ডানপাশে খাদে পড়ে যায়।
দুর্ঘটনার খবর পেয়ে ভাঙ্গা হাইওয়ে পুলিশ ও দমকল বাহিনীর দল এসে হতাহতদের উদ্ধার করে ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে আসে।

ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক গণপতি বিশ্বাস বলেন, এ দুর্ঘটনায় আহত ৭০জনকে ফরিদপুর মেডিকেল কলেজে আনা হয়। এখানে আহত একজনের মৃত্যু হয়। বর্তমানে ৫৫জন চিকিৎসাধীন রয়েছে। এর মধ্যে ৫জনের অবস্থা আশংকাজনক। বাকীরা প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়েছেন।

ফরিদপুর ভাঙ্গা হাইওয়ে পুলিশের উপ-পরিদর্শক (এসআই) আলমগীর হোসেন বলেন, দুর্ঘটনার খবর পেয়ে হাইওয়ে পুলিশ ও দমকল বাহিনী ঘটনাস্থলে গিয়ে হতাহতদের উদ্ধার করে ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠায়।