মেইন ম্যেনু

‘ফাঁকা রাজধানীতে নেই কোন বিধি-নিষেধ’

ঈদুল আজহার দ্বিতীয় দিনেও ঢাকা অনেকটাই ফাঁকা। ঈদের ছুটিতে বেশিরভাগ মানুষ রাজধনীর বাইরে থাকায় হারিয়েছে তার চিরচেনা রূপ।

তবে যানবাহন স্বল্পতার কারণে প্রতি মুহূর্তেই বিপাকে পড়তে হচ্ছে নগরবাসীকে। গ্যাস সংকটে সিএনজি স্টেশন বন্ধ থাকায় গণ-পরিবহণও কমেছে আশঙ্কাজনক হারে।

ফাঁকা রাজপথে তাড়াহুড়ো করে অনেকেই রাস্তা পার হচ্ছেন ঝুঁকি নিয়ে। বাসগুলোও চলছে দ্রুত গতিতে। ফলে দুর্ঘটনার আতঙ্ক নিয়ে থাকতে হচ্ছে নগরবাসীকে। এরই সঙ্গে আরেক উপদ্রব- বাসের বাড়তি ভাড়া আদায়।

তবে ভাড়া একটু বেশি হলেও এ সময় সবচেয়ে জনপ্রিয় বাহন হচ্ছে রিকশা। অন্য সময়ে রাজধানীর ভিআইপি রোডসহ বেশ কিছু রাস্তায় রিকশা প্রবেশ নিষেধ থাকলেও ফাঁকা রাজধানীতে সেই বিধিনিষেধ নেই।

রাজধানী বেইলী রোডের রিকশা চালাক সাহাবুদ্দিন জানান, ঈদে গাড়ি চালানো বেশ আরাম। যে কোন রাস্তায় খ্যাপ মারা যায়। কোন বিধি-নিষেধ নেই। রোজগারও কম নয়। কয়দিন পরই আবার তো বিধি-নিষেধে পড়তে হবে।

এদিকে গতকাল ঈদের দিনের তুলনায় আজ শনিবার রাজধানীর রাস্তায় মানুষের আনাগোনা বেশি ছিল। বিভিন্ন বিনোদন পার্ক ও হাতিরঝিলসহ অনেক জায়গায় পরিবার-পরিজন নিয়ে ঘুরতে বেরিয়েছেন নগরবাসী।পথে-ঘাটে ঈদ-উৎসবের আমেজ।

ঈদের দিন কোরবানি পশু নিয়ে ব্যস্ত সময় পার করেছেন অধিকাংশ মানুষ। ফলে বিকেলে সেভাবে জমে ওঠেনি বিনোদন স্পটগুলো।