মেইন ম্যেনু

ফিনল্যান্ডকে পাহাড় উপহার দিচ্ছে নরওয়ে

প্রতিবেশি দেশ ফিনল্যান্ডকে একটি পাহাড় উপহার দেয়ার জন্য নিজেদের সীমান্ত সরিয়ে নেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে নরওয়ে। সম্প্রতি দেশটির রাজনৈতিক মহলের একটি দল ইউরোপে এবিষয়ে আলোচনার জন্য গিয়েছিলেন। ওই আলোচনা অনুষ্ঠানে যোগদানকারী নরওয়ের সদস্যরা ফিনল্যান্ডের স্বাধীনতা শতবার্ষিকী উপলক্ষ্যে একটি পাহাড় উপহার দেয়ার ব্যাপারে আলোচনা করেন। এই উপহার কিভাবে দেয়া যায় এবং তাতে নরওয়েকে কতটুকু অংশ ছাড় দিতে হবে সেবিষয়ে বিস্তারিত আলোচনা করা হয়।

নরওয়ের মানচিত্র বিভাগের একজন সাবেক কর্মচারী জর্ন গেইর হ্যারিসন। দীর্ঘদিন ধরেই তিনি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে এই সীমান্ত সরিয়ে নেয়ার ব্যাপারে প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছেন। তার প্রস্তাবনা অনুযায়ী, নরওয়ে তার পূর্বাঞ্চলীয় সীমান্তকে ২০ মিটার(৬৬ ফুট) বামে সরিয়ে নিয়ে আসলে প্রতিবেশি দেশ ফিনল্যান্ড একটি নিজস্ব পাহাড়ের মালিক হতে পারে। হ্যারিসন তার ক্যাম্পেইনে বলেন, ‘আমরা চাইলেই নরওয়ের কোনো অংশ দিয়ে দিতে পারি না। এটা দেখতেও খুব একটা ভালো দেখাবে না। কিন্তু সীমান্ত সরিয়ে নিলে যে পাহাড়টি ফিনল্যান্ডের মধ্যে যাবে, সেজন্য আশা করি ফিনল্যান্ডবাসীরা খুশিই হবে।’

২০১৭ সালে ফিনল্যান্ডের স্বাধীনতার শতবর্ষ পূর্ণ হবে। এই শতবর্ষ উদযাপনেই হয়তো নরওয়ের পক্ষ থেকে এই উপহার দেয়া হতে পারে। যে পাহাড়টি ফিনল্যান্ডকে দেয়া হবে তা মাত্র ১ হাজার ৩৬৫ মিটার উচু। নরওয়ের প্রায় ২০০টি পাহাড় চূড়া থাকলেও, ফিনল্যান্ডে নেই কোনো পাহাড়। অর্থাৎ নরওয়ের দেয়া হাইতি পাহাড়টিই হবে ফিনল্যান্ডের ইতিহাসে একমাত্র পাহাড়। তবে উল্লেখ্য বিষয় হলো, উপহারতো খুব সহজেই দেয়া যায়। কিন্তু একটি দেশকে উপহার দিতে গিয়ে নিজেদের ভূভাগ ছেড়ে দেয়ার ঘটনা ইতিহাসে নেই। আর সেক্ষেত্রে ভূমি দান করে ইতিহাসেও জায়গা করে নিচ্ছে নরওয়ে।