মেইন ম্যেনু

ফিলিপাইনে আঘাত হেনেছে ঘূর্ণিঝড় কোপ্পু

ফিলিপাইনের উত্তরাঞ্চলে আঘাত হেনেছে ঘূর্নিঝড় কোপ্পু। এতে বাড়ি-ঘর মাটির সাথে মিশে গেছে এবং বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে গেছে। এছাড়া ঘূর্ণিঝড়ের কারনে হাজার হাজার মানুষ তাদের বাড়ি-ঘর ছেড়ে পালিয়ে যেতে বাধ্য হয়েছে।

দুর্যোগ অধিদপ্তরের কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, ঝড়ের প্রভাবে উপকূলে ৪ মিটার উচ্চতার ঢেউ আঘাত হেনেছে। রোববার সকালে লিউজোন দ্বীপের কাসিগুরান শহরে ঘূর্ণিঝড়ের কারনে ভূমিধসের ঘটনা ঘটেছে। ঘূর্ণিঝড় কোপ্পুর প্রভাবে তিন দিন অবিরাম বর্ষণ, আকস্মিক বন্যা এবং ভূমিধসের আশঙ্কা করা হচ্ছে।

সরকারি দুর্যোগ অধিদপ্তরের প্রধান আলেকজান্ডার পামা জানিয়েছেন, ‘উত্তর-পূর্বাঞ্চলীয় লিউজোন শহর থেকে প্রায় ১০ হাজার মানুষকে অন্যত্র সরিয়ে নেওয়া হয়েছে। তবে এখন পর্যন্ত কোনো হতাহতের খবর পাওয়া যায়নি।’

তিনি আরো জানিয়েছেন, ‘প্রাথমিকভাবে আমরা জানতে পেরেছি অনেক বাড়ি-ঘর ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে, বিভিন্ন স্থানে বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে গেছে এবং অনেক স্থানের প্রধান সড়কে গাছ পড়ে রাস্তা বন্ধ হয়ে গেছে।’ ঘূর্ণিঝড়টি ঘণ্টায় ৩ কিলোমিটার বেগে পূর্ব দিকে গতি বদলেছে বলেও জানিয়েছেন তিনি।

তিনি আরো বলেন, ‘ঘূর্ণিঝড়টি ধীরে ধীরে এর গতি হারিয়ে ফেলবে। আমরা আশা করছি যে এর গতি হারানোয় খুব শিগগিরই আমরা এর তাণ্ডব থেকে রেহাই পাব।’

উত্তরাঞ্চলে ঘূর্ণিঝড়ের কারণে সব ফ্লাইট এবং ফেরি চলাচল বাতিল করা হয়েছে। ভূমিধসের আশঙ্কায় পাহাড়ি এলাকায় বাস চলাচলও বন্ধ রাখা হয়েছে। এর আগে শুক্রবার দেশটির প্রেসিডেন্ট বেনিগনো আকুইনো গণমাধ্যমে সতর্কবার্তা জারি করেছিলেন। এর আগে দেশটিতে ২০১৩ সালে সুপার টাইফুন হাইহানের আঘাতে প্রায় সাড়ে ৬ হাজার মানুষ প্রাণ হারিয়েছিল।