মেইন ম্যেনু

ফি দিয়ে জাতীয় পরিচয়পত্র সংশোধনে প্রথম দিনেই ভোগান্তিতে নাগরিকরা

ফি দিয়ে জাতীয় পরিচয়পত্র সংশোধন করতে প্রথম দিনেই ভোগান্তিতে পড়েছেন নাগরিকরা। সোনালী ব্যাংকের মাধ্যমে এই ফি জমা দেওয়ার কথা থাকলেও দুপুর পর্যন্ত ব্যাংকে যায়নি কোন নির্দেশনা। নির্বাচন কমিশন বলছে, সব সেবার শুরুর দিকে কিছু ভোগান্তি থাকে পরে ঠিক হয়ে যায়।

হারানো জাতীয় পরিচয় পত্র নতুন করে পেতে বা কোন ভুল সংশোধন করতে এতদিন কোন টাকা লাগত না। কিন্তু পয়লা সেপ্টেম্বর থেকে এর জন্য ফি ঠিক করেছে নির্বাচন কমিশন।

এই সেবা নিয়ে এমনিতেই নানা অভিযোগ আছে সাধারণ মানুষের আর ফি দিয়ে এ সেবা নিতে গিয়ে প্রথম দিন সেই ভোগান্তি চরমে পৌঁছে। জাতীয় পরিচয়পত্র অনুবিভাগের মাত্র দুশো গজ দূরের সোনালী ব্যাংকের এই শাখায় গিয়ে সকালে কেউই ফি জমা দিতে পারেননি।

অনেকে সকালে জাতীয় পরিচয়পত্র অনুবিভাগে গিয়েই জানতে পারেন ফি দেবার বিষয়টি।

ট্রেজারি চালান, ব্যাংক ড্রাফট ও সোনালী ব্যাংকের অনলাইন সেবা এই তিনভাবে ফি জমা দেওয়ার কথা। অথচ সোনালী ব্যাংকের ম্যানেজার জানালেন, এ নিয়ে কোন নির্দেশনা আসেনি তাদের কাছে।

অবশ্য দুপুর নাগাদ জানা গেল, আপাতত সোনালী ব্যাংকের ট্রেজারি শাখাগুলোতে এ ফি জমা দেওয়া যাবে।

প্রথম দিনের এসব সমন্বয়হীনতা ও অব্যবস্থাপনা নিয়ে নির্বাচন কমিশন আনুষ্ঠানিকভাবে কিছু বলতে রাজি হয়নি। তারা বলছেন, শুরুতে এমনটা হতেই পারে। হারানো পরিচয়পত্র তুলতে ২০০টাকা আর নবায়ন করতে লাগবে ১০০টাকা। এছাড়া, পরিচয়পত্র সংশোধন করতে ২০০ টাকা আর তথ্য সংশোধন করতে লাগবে একশো টাকা।