মেইন ম্যেনু

ফুটপাতে ফেলে দেওয়া বৃদ্ধকে ফের নিয়েছে ঢামেক হাসপাতাল

ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালের সামনে ফুটপাতে ফেলে রাখা সেই অজ্ঞাত পরিচয় বৃদ্ধকে শেষপর্যন্ত ফের হাসপাতালের ভেতর নিয়ে গেছে কর্তৃপক্ষ। গতকাল শুক্রবার এ মর্মে মন্তব্য প্রতিবেদন প্রকাশের পর তৎপর হয় হাসপাতাল কতৃপক্ষ।

প্রায় ৬৫ বছর বয়সী ওই বৃদ্ধ বেশ কয়েকদিন ধরে পড়েছিলেন ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালের সামনের ফুটপাতে। চরম অসুস্থ এবং কথাবার্তা না বলা মানুষটিকে পারভেজ নামে একজন দোকান কর্মচারী আশপাশের কয়েকজনের সহযোগিতায় হাসপাতালে নিয়ে ভর্তি করান। কিন্তু পরিচয় এবং স্বজনহীন বৃদ্ধকে পরে ট্রলিতে তুলে নিয়ে ফের রাস্তায় ফেলে দিয়ে আসে হাসপাতালের লোকজন।

তবে বিষয়টি গতকাল (শুক্রবার) দুপুরে প্রকাশের পর রাত সাড়ে ৮টার দিকে জরুরি বিভাগের ওয়ার্ড মাস্টার আবুল হোসেন ঊর্দ্ধতনদের আদেশে তৎপর হন।

ভারপ্রাপ্ত উপপরিচালক হাবিবুর রহমানের নির্দেশে ওয়ার্ড মাস্টার আবুল ওই বৃদ্ধকে হাসপাতালে তুলে নিয়ে আসার ব্যবস্থা করেন।

নির্দেশ পেয়ে ওয়ার্ড বয় আয়নাল কয়েকজনকে সঙ্গে দিয়ে ফুটপাত থেকে বৃদ্ধকে তুলে ২১৭ নম্বর সার্জারি ওয়ার্ডে নিয়ে আসে। সেখানে তাকে পুনরায় ভর্তি করা হয়। এর আগে তাকে একই হাসপাতালের ২১৯ নংওয়ার্ডে ভর্তি করা হয়েছিল বলে জানা গেছে।

অধ্যাপক তপন চৌধুরীর তত্ত্বাবধানে ওই নাম-পরিচয়হীন বৃদ্ধের চিকিৎসা চলছে ওয়ার্ডের ভেতরের বারান্দার একটি বেডে। নানান সীমাবদ্ধতার মাঝেও কর্তৃপক্ষের এই তৎপরতাও প্রশংসনীয় বলে জানান নাম প্রকাশে অনিচ্চছুক হাসপাতালের একজন কর্মচারী।

হাবিবুর রহমান জানান, সুস্থ না হওয়া পর্যন্ত ঢামেক হাসপাতালের এই ওয়ার্ডেই লোকটির চিকিৎসা চলবে।

তিনি আরও জানান, স্বাসকষ্ট (অ্যাজমা), অপুষ্টি ও বার্ধক্যজনিত কিছু রোগে ভুগছেন ওই বৃদ্ধ।

তাকে চিকিৎসার সঙ্গে সঙ্গে পুষ্টিকর খাবারের ব্যবস্থা এবং যত্ন করা হলে সুস্থ-স্বাভাকি হতে সময় নেবে না বলে মনে করছে প্রত্যক্ষদর্শীরা।

সূত্র : কালের কণ্ঠ






মন্তব্য চালু নেই