মেইন ম্যেনু

ফুটপাতে মন্ত্রী পদমর্যাদার ভিভিআইপি ইনি!

মন্ত্রী পদমর্যাদার ভিভিআইপি ব্যক্তি, কিন্তু ঘুমান ফুটপাতে! নাম তার এস এম মতিউর রহমান। অবশ্য ভিজিটিং কার্ডে নামের আগে তিনি লাগিয়েছেন পীর শব্দটি। নামের পরেই লেখা আছে মন্ত্রী পদমর্যাদার ব্যক্তি ভিভিআইপি গবেষক।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের এস এম হলের রাস্তার ফুটপাতে দেখা যায় তাকে। ফুটপাতে ছালা বিছিয়ে দেয়ালে হেলান দিয়ে আয়েশী ভঙ্গিতে পা মেলে ঘুমাচ্ছিলেন মতিউর রহমান।

সাদা চুল, সাদা গোফ দাড়ি, মোটা পাওয়ারের চশমা, পরনে ছিল তার তেল চিটচিটে চেক লুঙ্গি ও ফুল হাতা সোয়েটার। পাশে রাখা এক জোড়া চামড়ার স্যান্ডেল ও টিয়া রংয়ের একটি ব্যাগ।

গলায় ঝুলানো ফিতাসহ একটি কার্ড। গলায় ঝুলানো কার্ডটি আসলে একটি ভিজিটিং কার্ড। সেখানে নাম ও পদ-পদবীর পরই লেখা রয়েছে, ‘আল্লাহ বলিতেছে আমি বিশ্ব নেতা, চকবাজার থানা, লালবাগ থানা ও ডিজিএফআই আমাকে দেখে।

সহপাঠী সাবেক মন্ত্রী ও সংসদ সদস্য সৈয়দ আবুল হোসেন, সাবেক যুগ্ম সম্পাদক ৬১ নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগ, ঢাকা। সাবেক ছাত্রলীগের কর্মী ও ৬ দফা ও ১১ দফা আন্দোলনের অগ্রভাগের কর্মী, দফতর সম্পাদক জাকের পার্টি লালবাগ থানা, সাবেক ভাইস প্রেসিডেন্ট আজাদ মুসলিম পাবলিক লাইব্রেরি, আজীবন সদস্য বরিশাল জেলা সমিতি ও সাবেক নির্বাহী কমিটির সদস্য বরিশাল জেলা সমিতি।

কেউ গেলে দু’চোখ বন্ধ করে হাত উঁচিয়ে আকাশ পানে মিনিট খানেক চুপচাপ থেকে বলেন, আমি পীর আওলিয়া। আঙ্গুল তুলে আকাশের দিকে তাকিয়ে বলেন, উনার অনুমতি ছাড়া কথা বলি না।

উনার অনুমতি পেলে কথা বলেন। প্রশ্ন করে উত্তর না দিলে চটে যান। তিনি এক নিশ্বাসে বলতে থাকেন ডিজিএফআই ও থানা পুলিশের একাধিক কর্মকর্তা তাকে সব সময় নজরে রাখেন।

লোকজনের উপকার করেন। তবে বেশি কথা বলার পারমিশন নেই বলে জানান। মাঝে মাঝে আবার চোখ বন্ধ করেন। নিজে ইচ্ছে না করে কথা বললে শত চেষ্টা করেও তার মুখ থেকে আর কোনো কথা বের করা যায় না।