মেইন ম্যেনু

ফেইসবুকের কল্যাণে পাল্টে গেল পঙ্গু শরিফুলের জীবন

দিনমজুর শরিফুল ইসলাম (২৬)। বাড়ী রাজবাড়ীর বালিয়াকান্দি উপজেলার ইসলামপুর ইউনিয়নের দিয়ারা গ্রামে। তার পিতার নাম মিনু মন্ডল। শরিফুল ইসলাম ১ ছেলে ও ১ মেয়ের জনক। পিতা-মাতা ও স্ত্রী-সন্তানকে ভালোভাবে খেতে পড়তে দেওয়ার উদ্দেশ্যে বেছে নেয় দিনমজুরী।

গত ২৪ মে ধান মাড়াই মেশিনে বাম হাত চলে যায়। তাকে রাজবাড়ী, ফরিদপুর হাসপাতালে নিলেও চিকিৎসকরা ফেরত দেয়।

পরে তাকে ঢাকার ক্রিসেন্ট ক্লিনিক এন্ড হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। দরিদ্র পরিবারের সন্তান হওয়ায় তার চিকিৎসা ব্যয় যোগাতে হিমসীম খচ্ছিল। ঢাকায় চাকুরীরত দিয়ারা গ্রামের “হাসান মাহমুদ টারজান ”নামে ফেইসবুকে তার চিকিৎসার জন্য আবেদন জানানো হয়। আবেদনের প্রেক্ষিতে কাতার প্রবাসী একজন প্রভাষক বিকাশের মাধ্যমে তাকে ২০হাজার ৫শত টাকা প্রদান করেন।

দিয়ারা সমবায় সমিতি থেকে ২১হাজার ৫শত টাকা, অন্যান্যে লোকজন বিকাশের মাধ্যমে ২২ হাজার টাকা প্রদান করেন। চিকিৎসকরা তার সুস্থতার স্বার্থে সর্বশেষ তার হাতটি কেটে ফেলতে হয়েছে। মঙ্গলবার ফেইসবুকের এ ষ্টাটার্স দেখে সরাসরি দিয়ারা গ্রামে এসে তাকে দেখে তার হাতে যুক্তরাষ্ট্র রাজবাড়ী জেলাবাসী ইউএসের পক্ষ থেকে নগদ ৩২ হাজার টাকা প্রদান করেন।

এসময় যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসী মোঃ আনিসুর রহমান শাহীন, প্রবাসী হাফিজুর রহমান, আরমিটোলা সরকারী উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক আ ন ম রাশেদ, বাড়াইজুড়ি গরীবশাহ দাখিল মাদ্রাসার সুপার আঃ রহিম, জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাধারন সম্পাদক মিজানুর রহমান মিঠু, ব্যবসায়ী আক্তারুজ্জামানসহ এলাকাবাসীর লোকজন উপস্থিত ছিলেন। ফেইসবুকে ষ্টাটার্স পেয়ে শরিফুল ইসলামের পাশে এসে দাড়িয়েছেন তাদের প্রতিকৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন শরিফুল।

ফেইসবুকে ষ্টাটার্সকারী হাসান মাহমুদ টারজান বলেন, আমি যখন ফেইসবুকে ষ্টাটার্স দেই, তখন অনেকেই বিরুপ মন্তব্য করেছেন। তারপরও আমার কারণে একটি মানুষের জীবন বাঁচাতে মানুষ এগিয়ে এসেছে , এতে আমি নিজেকে ধন্য মনে করি।