মেইন ম্যেনু

ফের ছাত্রদল নেতাকে পেটাল জাবি ছাত্রলীগ

শাহাদত হোসাইন স্বাধীন, জাবি প্রতিনিধি: জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে (জাবি) শাখা ছাত্রদলের এক নেতাকে বেধড়ক পিটিয়ে আহত করেছে বিশ্ববিদ্যালয়ের মওলানা ভাসানী হল শাখা ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা। সোমবার (১১ এপ্রিল) রাত সাড়ে ৯টা দিকে উপাচার্যের বাস ভবনের সামনে এ ঘটনা ঘটে। মারধরের শিকার হয়েছেন বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রদলের সহ-সভাপতি ও বাংলা বিভাগে ৩৯তম ব্যাচের শিক্ষার্থী ইব্রাহীম খলিল বিপ্লব।
প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, বিপ্লব হলে এলে ছাত্রলীগের উপ-মানব বিষয়ক সম্পাদক ফিরোজুর রহমান সবুজ, সহ-সম্পাদক মেহেদী হাসান রোমান ও কার্যকরী সদস্য ইবনে সউদ মিশুর নেতৃত্বে মো. উজ্জ্বল হোসেন, সাদ্দাম হোসেন, ইমরান, রোকন, আরিফ, জুবায়েরসহ ১৫-২০ জন ছাত্রলীগ নেতাকর্মী তাকে বেধড়ক পিটিয়ে আহত করেন। পরে বিপ্লবকে বিশ্ববিদ্যালয় মেডিকেল সেন্টারে প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়। এরপর তাকে সাভারের এনাম মেডিকেলে কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।
সেখানকার কর্তব্যরত চিকিৎসক এনামুর রশিদ লিটু বলেন, বিপ্লবের শরীরের বিভিন্ন জায়গায় গুরুতর জখম হওয়ায় তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য স্থানান্তর করা হয়েছে। ছাত্রলীগের ওই নেতাকর্মীরা মওলানা ভাসানী হলের আবাসিক শিক্ষার্থী এবং শাখা ছাত্রলীগে সাংগঠনিক সম্পাদক মোর্শেদুর রহমান আকন্দের অনুসারী বলে জানা গেছে।
ছাত্রদল নেতাকে মারধরের বিষয়ে মোর্শেদুর রহমান আকন্দ বলেন, ছাত্রলীগের নবীনবরণ অনুষ্ঠানে নাশকতার করার জন্য তারা তৎপরতা চালাচ্ছিল। এ খবর পেয়ে আমার অনুসারীরা তাকে মারধর করেছে। এ ঘটনার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে শাখা ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রহিম সৈকত বলেন, এখন থেকে যেখানেই ছাত্রলীগ নেতাকর্মী পাওয়া যাবে, সেখানেই গণপিটুনি দেওয়া হবে। বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন দ্রুত এর বিচার না করলে যেকোনো অপ্রীতিকর ঘটনার দায়ভার প্রশাসনকেই নিতে হবে।
এ বিষয়ে সহকারী প্রক্টর ড. মো. শরিফ হোসেন বলেন, বিপ্লবের অবস্থা গুরুতর দেখে তাকে আমরা এনাম মেডিকেলে পাঠিয়েছি। তাকে কে বা কারা মেরেছে এ বিষয়ে এখনো নিশ্চিত হতে পারিনি। পরবর্তীতে খোঁজ নিয়ে তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।