মেইন ম্যেনু

ফেসবুকে আপনার ব্যক্তিগত মেসেজ পড়ছে না তো?

ফেসবুকে ব্যক্তিগত কথোপকথন এবং ছবি শেয়ারিং কতটা ব্যক্তিগত? আপনি কি নিশ্চিত যে আপনার ব্যক্তিগত মেসেজ এবং ছবি ফেসবুক স্ক্যান করে না? ফেসবুকের অন্তর্বর্তী নজরদারি ইউজারদের ব্যক্তিগত কথা কতটা ব্যক্তিগত রাখে সেই নিয়ে অনেকেরই উদ্বেগ বাড়ছে কারণ সম্প্রতি মার্কিনদেশে ফেসবুকের বিরুদ্ধে একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে।

উত্তর ক্যালিফোর্নিয়ার একটি জেলা আদালতে ফেসবুকের বিরুদ্ধে একটি মামলা দায়ের করে বলা হয়েছে যে ফেসবুকের প্রাইভেট মেসেজিং সিস্টেমের মাধ্যমে ইউজারদের শেয়ার করা ব্যক্তিগত মেসেজগুলি ফেসবুক নিয়মিত স্ক্যান করে। এই নজরদারি ইলেকট্রনিক কমিউনিকেশনস ভায়োলেশন অ্যাক্টকে লঙঘন করছে বলেই জানিয়েছেন মামলাকারীরা।

তবে এই বিষয়ে ফেসবুকের বক্তব্য, বিজ্ঞাপনের কারণে ডেটা অ্যানালিসিসের জন্যই এই স্ক্যানিং করা হয় এবং সেখানে ইউআরএল-গুলির প্রত্যেকটি আলাদা করে দেখা হয় না। এগ্রিগেট ডেটা হিসেবেই সেগুলিকে গণ্য করা হয়।

কিন্তু সেক্ষেত্রেও বিপদ একটা থেকেই যায়। যেমন অনেক দম্পতি যাঁরা আলাদা শহরে থাকেন তাঁরা ব্যক্তিগত ছবি একে অপরকে শেয়ার করেন ফেসবুক মেসেঞ্জারে। সেখানে এমন কিছু ছবি থাকতেই পারে যা একেবারেই ব্যক্তিগত। এগ্রিগেটে ইউআরএল স্ক্যান করা হলেও কোন ইউজার প্রোফাইল থেকে এই ধরনের ছবি শেয়ার করা হচ্ছে তার উপরে ফেসবুকের নজরদারি থাকে।

এছাড়া মামলাকারীদের বক্তব্য, এই স্ক্যান করা মেসেজগুলি আর্কাইভ করা হয় এবং সেক্ষেত্রে ফেসবুকের যে কোনও কর্মচারী ইচ্ছে করলেই সেগুলি খুলে দেখতে পারেন। তার চেয়েও বড় কথা, কোনও খোলামেলা ছবি ইচ্ছে করলেই কেউ পর্নোগ্রাফিক সাইটে দিতে পারেন। ইউজাররা জানতেই পারবেন না যে তাঁদের ব্যক্তিগত সেক্সটিং বা ছবি বেআইনি ভাবে ব্যবহার করা হচ্ছে। তাই এর পর ফেসবুকে ব্যক্তিগত কথোপকথনের সময়ে সাবধান।