মেইন ম্যেনু

ফেসবুকে পোস্ট, কেড়ে নিচ্ছে শিশুর প্রাণ!

ইন্টারনেট স্পষ্টভাবে সমগ্র বিশ্বকে যেন একটি ছোট্ট গ্রামের মাঝে নিয়ে এসেছে। পৃথিবীর দুই প্রান্তের মানুষ নিমিষেই একে-অপরের ডাকে খুব সহজে সাড়া দিতে পারছেন এই ইন্টারনেটের কল্যাণে।

প্রতিটি জিনিসের যেমন ভাল দিক রয়েছে, তেমনি এর খারাপ দিকও রয়েছে। ইন্টারনেটের হরেক রকম সুবিধার সাথে সাথে এর অসুবিধাও রয়েছে। এর ভয়াবহতা অনেক সময় চরম পর্যায়ে চলে যায়।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের কল্যাণে মানুষ এখন তার প্রতি মুহূর্তের কথা বন্ধু-বান্ধব ও অজানা অনেক মানুষের নিকট নিজের অজান্তে ছড়িয়ে দিচ্ছে। এখান থেকে শুরু হচ্ছে বীভৎস সব কাহিনী।

নিজের সন্তানকে প্রথম দিন বিদ্যালয়ে নিয়ে যাবার আনন্দ সত্যিই অসাধারণ। এই কথা সকলের সাথে শেয়ার করার ইচ্ছা জাগে। কিন্তু সেখানে স্কুলের নাম দিয়ে আপনি নিজে নিজের সন্তানের ভবিষ্যৎ বিপর্যয়ের মুখে ফেলে দিচ্ছেন।

একটি চক্র সারাক্ষণ ইন্টারনেটে শিশুদের খোঁজ করে। তারা যখন শিশুদের ব্যাপারে কিছু তথ্য পেয়ে যান তখন তারা তাদের ওয়েবসাইটে সেই শিশুর ছবি দিয়ে তাদের বিক্রয় করার অফার দেন। যখন কেউ সেই শিশুকে নেয়ার আগ্রহ প্রকাশ করেন তখন সেই শিশুকে স্কুল থেকে অপহরণ করা হয়।

আপনি কখনও এই চক্রের সন্ধান করে বের করতে পারবেন না। তাদের চক্র বিশাল বড় থাকে। এমনও হতে পারে আপনার আশেপাশে তাদের অবস্থান। তাই প্রথমে আপনি নিজে সতর্ক থাকুন এবং ফেসবুকে সকল বিষয় শেয়ার করা থেকে বিরত থাকুন।–সুত্র: উইটিফিড।