মেইন ম্যেনু

ফেসবুকে হিরো হওয়ার সহজ কৌশল!

জীবনে সবাই হিরো হতে চায়। কেউ হিরো হতে চায় সিনেমায়, আর কেউবা হতে চায় ফেসবুকে। যেহেতু এটা ফেসবুকীয় যুগ তাই কীভাবে সহজ কৌশলের মাধ্যমে ফেসবুক হিরো হতে পারবেন সেসব উপায় বাতলে দেওয়া হলো।

– চেহারা যত আলুথালু হবে আপনার হিরো হওয়ার চান্স তত বেশি থাকবে। আর তাই ছবি আপলোডের সময় নিজের চেহারায় একটা গোবেচারা টাইপ ভাব আনার চেষ্টা করুন।

– আজকাল বাংলা ভাষার বিকৃতি আর ভুল টাইপিং একটা ফ্যাশন হয়ে দাঁড়িয়েছে। তাই যত বেশি ভাষার বিকৃতি আর ভুল উচ্চারণ করবেন ততই আপনার হিরো হওয়ার চান্স বেশি থাকবে।

– বিতর্কিত হওয়াটা আজকাল জনপ্রিয়তা পাওয়ার অন্যতম কৌশল। আর তাই ফেসবুকে হিরো হতে হলে আপনাকে দুই-চারটা বিতর্কিত পোস্ট করতেই হবে।

– ফ্রেন্ডলিস্টে ফ্রেন্ড থাকুক আর নাই থাকুক, দুইদিন পর পর ‘আজ ওমুক-তমুককে আনফ্রেন্ড করলাম’ কিংবা ‘আজকে টোটাল এত জনকে ব্যান করলাম’ এইটাইপের স্ট্যাটাস দিলে সহজেই সবার চোখে হিরো হতে পারবেন।

– ইনবক্সের কথোপকথন পাবলিকলি নিয়ে আশাটাও আজকাল হিরো হওয়ার একটা গোপন শর্ত হয়ে দাঁড়িয়েছে। তাই হিরো হতে হলে মাঝেমধ্যে দু-একটা ইনবক্সের আলাপ আপনাকে প্রকাশ্যে শেয়ারের মানসিকতা রাখতেই হবে।

– কেউ ম্যাসেজ দিলে আনসিন কিংবা সিন করে রিপ্লাই না দেওয়াটাও একটা হিরোয়িক গুণ! এতে পাবলিককে সহজে বুঝানো যায় আপনি কতটা ব্যস্ত ক্যাটাগরির লোক! আর ফেসবুকে যত বেশি ব্যস্ততা ততই আপনার হিরো হওয়ার চান্স বেশি।

– লাইকার থাক বা না থাক, হিরো হওয়ার জন্য নিজের নামে একটি ফ্যান পেইজ থাকা জরুরি! আর তাই হিরো হতে হলে আপনাকে অবশ্যই নিজের নামে একটি পেইজ খুলে রাখতে হবে।

– ফেসবুক হিরো হতে হলে আপনাকে স্ক্রিনশট শব্দটার সাথে পরিচিত হতে হবে। কেননা মাঝেমধ্যে কারণে-অকারণে আপনাকে বিভিন্ন জনের কমেন্ট আর ইনবক্সের ম্যাসেজের স্ক্রিনশট নিয়ে মানুষজনকে দেখাতে হবে কি না!

– ঘন ঘন চেকইন দেওয়াটাও আপনাকে ফেসবুক হিরো হতে সাহায্য করবে। আর তাই একটু পর পর আপনাকে বিশ্বের নামিদামি সব হোটেল, রেস্তোরাঁ কিংবা শপিং মলে ঢোকার চেকইন দিতে হবে। আর এই কাজটা আপনি বাড়িতে বসে কিংবা ফুটপাতের সস্তা চায়ের দোকানে বসেও করতে পারেন। কারণ কেউ তো আর আপনাকে কোথায় আছেন সেটা যাচাই করার জন্য মাঠে নামছে না।