মেইন ম্যেনু

ফ্রান্সের কাছে পর্তুগালের আরেকটি হার

ফ্রান্সের বিপক্ষে আগের ২৩ বারের দেখায় ১৭টিতেই হেরেছিল পর্তুগাল। আর পর্তুগিজদের জয় মাত্র ৫টি ম্যাচে। শেষ জয়টি আবার ১৯৭৫ সালে। দীর্ঘদিনের জয়খরা কাটানোর লক্ষ্যে শুক্রবার রাতে লিসবনে ফ্রান্সের বিপক্ষে মাঠে নেমেছিল পর্তুগাল। তবে এবারও স্বপ্ন পূরণ হয়নি, আরেকটি পরাজয়ের উপাখ্যান রচনা করেছে পর্তুগিজরা।

নিজেদের মাঠে শুক্রবার রাতে প্রীতি ম্যাচে ফ্রান্সের কাছে ১-০ গোলে হেরেছে ক্রিস্টিয়ানো রোনালদোর পর্তুগাল। ফরাসিদের জয়সূচক একমাত্র গোলটি করেন মাথিউ ভালবুয়েনা।

সম্প্রতি অবশ্য পর্তুগালের পারফরম্যান্স দারুণ ছিল। ফ্রান্সের বিপক্ষে ম্যাচের আগের আট ম্যাচের সাতটিতেই জিতেছিল তারা। আর ফ্রান্স তাদের শেষ চার ম্যাচের তিনটিতেই হেরেছিল। ফলে ফরাসিদের চেয়ে আত্মবিশ্বাসে অনেক এগিয়ে থেকেই শুক্রবার রাতে খেলতে নামে পর্তুগিজরা। ঘরের মাঠে খেলার বাড়তি সুবিধা তো ছিলই। কিন্তু ম্যাচের প্রথমার্ধে কাজের কাজ কিছুই করতে পারেনি তারা।

ম্যাচের প্রথম ৪০ মিনিটে ফ্রান্সের গোলমুখে কোনো শটই নিতে পারেনি পর্তুগাল। অবশ্য ৪১ মিনিটেই কাঙ্ক্ষিত গোল পেতে পারত তারা। কিন্তু সহজ সুযোগ নষ্ট করেন রিয়াল মাদ্রিদ তারকা রোনালদো। ফলে গোলশূন্যভাবেই শেষ হয় প্রথমার্ধের খেলা।

অপরদিকে রিয়ালের আক্রমণভাগের আরেক তারকা করিম বেনজেমাও ফ্রান্সের শুরু একাদশ থেকেই মাঠে ছিলেন। কিন্তু এই ফরাসি স্ট্রাইকারও ছিলেন নিষ্প্রভ। ফলে এক সময় মনে হচ্ছিল, নিশ্চিত গোলশূন্য ড্রতে হয়তো শেষ হতে যাচ্ছে খেলা।

তবে নির্ধারিত সময়ের খেলা শেষ হওয়ার ৫ মিনিট আগে পর্তুগালের ত্রাণকর্তা হয়ে দেখা দেন বদলি হিসেবে নামা ভালবুয়েনা। ২০ গজ দূর থেকে দারুণ বাঁকানো এক ফ্রি-কিকে গোল করেন তিনি। শেষ পর্যন্ত তার ওই গোলেই জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ে ফ্রান্স।