মেইন ম্যেনু

ফ্রান্স ইসলামিক সেন্টারের ক্বিরাত, হামদ-নাত ও বক্তৃতা প্রতিযোগিতা

ওমর ফারুক, প্যারিস (ফ্রান্স) থেকে : পবিত্র মাহে রমযান উপলক্ষে ফ্রান্সের সর্বোবৃহত সংগঠন বাংলাদেশ কমিউনিটি মসজিদ ও ইসলামিক সেন্টার-ফ্রান্সের উদ্যোগে ক্বিরাত, হামদ-নাত, ইসলামী সংগীত ও বক্তৃতা প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়েছে। গত শনিবার ফ্রান্সের অভিযাত ইস্তা এলাকায় বাংলাদেশ কমিউনিটি মসজিদ ও ইসলামিক সেন্টারের হল রুমে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের মাধ্যমে প্রতিযোগিতা শুরু হয়ে রোববার শেষ হয়। বয়স ভিত্তিক নানা ইভেন্টে দুই শতাধিক প্রতিযোগী এতে অংশগ্রহণ করে। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে ফ্রান্সে বসবাসরত বাংলাদেশের বিভিন্ন রাজনৈতিক, সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠনের নের্তৃবৃন্দ ছাড়াও অন্যান্য দেশের গুরত্বপূর্ণ ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত হন। বাংলাদেশ কমিউনিটি মসজিদ ও ইসলামিক সেন্টারের সভাপতি আবু তাহির সরকারের সভাপতিত্বে ও সাংবাদিক নুরুল ইসলামের পরিচালনায় উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন ফ্রাঙ্কো বাংলা কালচারাল অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি খান হাবিবুর রহমান। তিনি বলেন, পিতা-মাতার সবচেয়ে বড় সম্পদ তার নেককার, পরেহেজগার ও খোদাভিরু সন্তান। কারণ প্রচুর অর্থ-সম্পদ থালেও মৃত্যুর পর তা কোনো কাজে আসবেনা। একটা সুসন্তান থাকলে তার দোয়ার বরকতে আপনার জান্নাত নসিব হতে পারে। অথচ দুনিয়াতে হালাল-হারামের দিকে না তাকিয়ে আমরা অর্থ-সম্পদের পেছনে যে সময় ব্যয় করি সন্তান লালন-পালনের জন্য তা করি না। এতে পশ্চিমা সংস্কৃতির প্রভাবে তারা পথভ্রষ্ট হচ্ছে। পরিনামে পিতা-মাতার অবাধ্য হয়ে নানা অপকর্মে লিপ্ত হয়। নিজেকে সর্বনাশের শেষপ্রান্তে নিয়ে যায়। তখন পিতা-মাতার দুঃখ-কষ্টের সীমা থাকেনা। আমাদের সন্তানদের সঠিক পথে পরিচালিত করতে বাংলাদেশ কমিউনিটি মসজিদ ও ইসলামিক সেন্টার রাসুল ( স.)প্রতিষ্ঠিত মসজিদে নববীর আলোকে আধুনিক শিক্ষার পাশাপাশি নানামুখি ইসলামী শিক্ষার ব্যবস্থা করছে। এতে আমাদের সন্তানরা প্রবাসে থেকেও সঠিক জ্ঞানার্জনের মাধ্যমে কোরআনের আলোকে জীবন গড়ার সুযোগ পাচ্ছে। পিতা-মাতার বাধ্য সন্তান হিসেবে সামাজিক কর্মকাণ্ডে অংশগ্রহণ করছে। সবাইকে কোরআনের আলোকে জীবন পরিচালনায় উদ্বুদ্ধ করতে এ প্রতিযোগিতার আয়োজন বলেও উল্লেখ করেন তিনি। সবার উচিত নিজেদের কল্যাণে এ প্রতিষ্ঠানকে কেয়ামত পর্যন্ত টিকিয়ে রাখা। ফ্রান্স বিএনপির সভাপতি সৈয়দ সাইফুর রহমান ও সাধারণ সম্পাদক এম এ তাহির তাদের বক্তব্যে বাংলাদেশ কমিউনিটি মসজিদ ও ইসলামিক সেন্টারের পাশে থেকে কাজ করার প্রত্যয় ব্যক্ত করেন। ওভারভিলা জামে মসজিদের সভাপতি আওয়ামী লীগ নেতা সালেহ আহমেদ ও ফ্রান্স, জাতীয় পার্টির সভাপতি আলমগীর হোসেন বলেন, ইসলামিক সেন্টারের কার্যক্রমে আমারা মুগ্ধ। ভবিষ্যতে এ ধরনের কার্যক্রমকে এগিয়ে নিতে আমাদের সর্বাত্মক সহযোগিতা থাকবে। এময় বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ কমিউনিটি মসজিদ ও ইসলামিক সেন্টারের অন্যতম সদস্য জালাল আহমেদ, মেট্রো হোস জামে মসজিদের সহ-সাধারণ সম্পাদক জহিরুল ইসলাম, অভিভাবক মুস্তাক আহমেদ ও ফিরোজ গুল ফরাজী। অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, কমিউনিটি নেতা গোলাম ফারুক ভুঁইয়া, আবুল খায়ের লস্কর, নজরুল ইসলাম ও কামরুল হাসান।আগামী ১ জুলাই, ২৬ রমাদান, শুক্রবার এক আড়ম্বরপূর্ণ অনুষ্ঠানের মাধ্যমে বিজয়িদের হাতে পুরস্কার তুলে দেয়া হবে।

13474041_1043572712402443_1258553392_n

13479238_1043572869069094_113476905_n 13487304_1043572932402421_514316875_n