মেইন ম্যেনু

ফ্রিজে খাবার জমানোর ব্যাপারে মোটেই ভুলবেন না এসব তথ্য

ফ্রিজে খাবার রাখাটা সবার জন্য বেশ সময় বাঁচিয়ে দেয়। এতে খাবার বারবার রান্না, বাজার করার সময়টাও বাঁচে আবার খাবার নষ্ট হবার কষ্টটাও নেই। কিন্তু এই আধুনিক যুগেও খাবার জমিয়ে রাখতে গিয়ে আমরা কিছু ভুল করে ফেলি। আসুন দেখে নেই ফ্রিজে ঠিকঠাকমতো খাবার জমানোর যতো টিপস।

১) একসাথে বেশি খাবার রাখবেন না

ফ্রিজারে বরফ জমাট করে খাবার রাখার সময়ে খাবারগুলো আলাদা করে রাখতে হবে। নয়তো একসাথে আটকে যাবে সেগুলো, আর বের করে সেগুলোকে গরম করার সময়েও আলাদা করা যাবে না। আলাদা করে রাখুন। আর ফ্রিজারে রাখার জন্য বিশেষ ধরণের কিছু প্লাস্টিকের ব্যাগ এবগ্ন কন্টেইনার পাওয়া যায়, এগুলো ব্যবহার করতে পারেন।

২) স্টাইরোফোম ফেলে দিন

বিভিন্ন সুপার শপে মাংস কিনতে গেলে বিশেষ করে মুরগীর মাংস অনেক সময়েই সাদা স্টাইরোফোম বা শলার একটা প্যাকেজে দেওয়া হয়, ওপরে থাকে প্লাস্টিকের আবরণ। ফ্রিজে রাখার সময়ে এই স্টারোফোম খুলে ফেলুন। এগুলো জমাট বাধলে মাংসের সাথে লেগে যায় যা অস্বাস্থ্যকর।

৩) মাংস জমাট করে রাখা

প্রতিবার রান্নার সময়ে যতটুকু মাংস দরকার, ততটুকুই আলাদা করে ফ্রিজে রাখুন, সব একসাথে রাখবেন না। কিমাও রাখুন অল্প করে আলাদা করে। ইচ্ছে হলে মাংস ম্যারিনেড করেও রাখতে পারেন। এতে মাংসের ভেতরে মশলা ভালোভাবে ঢুকবে।

৪) সবজি জমিয়ে রাখা

শিম, মটরশুঁটি এবং ভুট্টা ধরণের সবজি সহজেই ফ্রিজারে রাখা যায়। অন্যান্য সবজিগুলো আসলে ফ্রিজ করে রাখা গেলেও পরে আর কাঁচা খাওয়া যায় না। যেমন টমেটো জমাট বেঁধে গেলে একে রান্না করা যায় কিন্তু আর কাঁচা খাওয়া যায় না। সবজি হালকা সেদ্ধ করে রাখতে পারেন।

৫) ফল জমিয়ে রাখা

কমলা, লেবু এগুলো কেনার পর পরই জুস বের করে ফেলুন। এরপর আইস কিউব ট্রেতে জমিয়ে রাখলে অনেকদিন পর্যন্ত উপভোগ করতে পারবেন। কলাও ফ্রিজে জমিয়ে রাখা যায় কিন্তু এটার দাম কম আর সারা বছর পাওয়া যায় বলে সাধারণত দরকার হয় না। আঙ্গুর, চেরি, স্ট্রবেরি এগুলো জমিয়ে রাখা যায় সহজেই।

৬) আরও কিছু

অনেক কিছুই ফ্রোজেন করে রাখা যায়। দুধ, জুস এগুলো জমাট বেঁধে রাখা যায়, তবে পান করার আগে ভালো করে ঝাঁকিয়ে নিতে হয়। রান্না করা খাবারও ফ্রোজেন করে রাখতে পারেন সময় বাঁচানোর জন্য। ডিম অল্পপ লবণ দিয়ে হালকা ফেটে রাখতে পারেন একটি কন্টেইনারে। রাখতে পারেন রসুন, চিপস, আটা, রান্না করা ভাত এবং পাস্তা।

৭) কি রাখবেন না ফ্রিজারে

কাঁচের বোতলে করে কখনো কোনো তরল ফ্রিজ করবেন না। বোতল ভেঙ্গে কেলেংকারি হয়ে যেতে পারে। ডিম ফ্রোজেন করবেন না। মায়োনেজ ফ্রিজারে রাখলে এটা গলে যাবার সময়ে কেটে যাবে, তা ভীষণ বাজে হয়ে যায়। ফ্রিজারে কফিও রাখবেন না। এতে ফ্রিজারে যতো গন্ধ আছে সব কফিতে গিয়ে উপস্থিত হবে।

তথ্যসূত্র:

A complete guide to freezing groceries, Business Insider

How Long Can You Store Food in the Freezer? This Chart Has Your Answer, The Penny Hoarder

17 Foods You Didn’t Even Know You Could Freeze, Huffington Post

ফটো ক্রেডিট:

www.shutterbean.com

www.prolificjuicing.com

www.simplebites.ne

www.frugalfamilyhome.com