মেইন ম্যেনু

ফ্রিজ কেনায় ব্যস্ততা

জাকারিয়া শেখ, গোপালগঞ্জ থেকেঃ রাত পোহালেই ঈদ-উল আযহা। কোরবানি হবে পশু। পশুর মাংস সংরক্ষণের জন্য প্রয়োজন রেফ্রিজারেটরের (ফ্রিজ)।

তাই গরু-খাসি কেনা শেষে এখন ক্রেতারা ব্যস্ত ফ্রিজ কেনায়। ফ্রিজের শোরুমগুলো সরগরম হয়ে উঠেছে। ক্রেতার চাপ সামলাতে ও ফ্রিজ সরবরাহ করতে বিপাকে পরতে হচ্ছে অনেক শোরুম মালিককে। তিন দিন ধরে গোপালগঞ্জের কোটালীপাড়া উপজেলায় চলছে মানুষের ফ্রিজ কেনার ব্যস্ততা।

উপজেলায় রয়েছে অন্তত ৭টি শোরুম ও ফ্রিজ বিক্রেতা ডিলার। সোমবার উপজেলার ফ্রিজের শোরুমগুলোতে ছিল ব্যস্ততা। শোরুমগুলোর সামনে ভ্যানগাড়িতে তোলা হয় একের পর এক ফ্রিজ। যাচ্ছে ক্রেতার বাড়িতে। উপজেলার ঘাঘর বাজারে মেসার্স ফাতেমা ইলেকট্রনিক্সের ম্যানেজর সাইফুদ্দিন জানান, ৪ দিন ধরে দিনে গড়ে ১০-১২ ফ্রিজ বিক্রি হচ্ছে তাদের দোকান থেকে।

ঈদের শেষ দিনে (ফ্রিজ) ক্রেতাদের ভির ছিল উপচে পড়ার মত। ওই ব্যস্ততায় তাদের হিমশিম খেতে হচ্ছে। ওয়ালটন ফ্রিজ কোম্পানির ডিলার পলাশ হাজরা জানান, সকাল থেকে দুপুর ২টা পর্যন্ত তার দোকান থেকে ২০ টি ফ্রিজ বিক্রি হয়েছে।