মেইন ম্যেনু

বই বেরুচ্ছে কবি সঞ্জয়ের

বলিউড অভিনেতা সঞ্জয় দত্ত এখন মুক্ত মানুষ। কিছুদিন আগেও তিনি জেলে ছিলেন। জেলে তার নম্বর ছিল সি-১৬৬৫৬। জেলে থাকা অবস্থায় এ অভিনেতাকে নানা রকম ছোট খাটো কাজ করতে হয়েছে। কাগজের ঠোঙা তৈরি, টিনের কৌটা তৈরি থেকে শুরু করে জেলের রেডিওতে জকি হিসেবে কাজ করেছেন তিনি। এগুলোর পাশাপাশি নিজের জীবনের গল্পও লিখেছেন এ অভিনেতা। আর তার সেই গল্প নিয়ে এবার তৈরি হচ্ছে বই।

১৯৯৩ সালে মুম্বাইয়ের বোমা হামলার সঙ্গে জড়িত থাকার দায়ে পুনের ইয়েরওয়াড়া জেলে দীর্ঘদিন কারাভোগ করছিলেন বলিউড অভিনেতা সঞ্জয় দত্ত। ৫৬ বছর বয়সি এ অভিনেতা তার দণ্ডের মেয়াদ শেষ করে গত ২৫ ফেব্রুয়ারি জেল থেকে মুক্ত হয়েছেন। জেলে বসে দুই কারাসঙ্গীর সঙ্গে মিলে প্রায় ৫০০ টির বেশি কবিতা লিখেছেন সঞ্জয় দত্ত। এখন সেই কবিতাগুলো নিয়ে একটি বই প্রকাশ করবেন এ অভিনেতা। বইটির নাম রাখা হবে ‘সালাখেন’।

এ বিষয়ে সঞ্জয় দত্ত বলেন, ‘আমি কিছু লিখেছিলাম এবং এখন ‘সালাখেন’ নামে একটি বই প্রকাশ করতে চাই। আমরা এটি প্রকাশকদের দেখাব। আমি এবং আমার দুই কারাসঙ্গী সমীর ও জিশান মিলে ৫০০ টি কবিতা লিখেছি। তারা আমার সঙ্গে রেডিও স্টেশনে ছিল। সবগুলোই হিন্দিতে লেখা।’

তবে লেখালেখিতে নিয়মিত হতে চান না সঞ্জয় দত্ত। আবার ফিরতে চান অভিনয়ে। এ বিষয়ে তিনি বলেন, ‘আমাকে কয়েকটা দিন আমার পরিবারের সঙ্গে থাকতে দিন। আমি তাদের সঙ্গে কিছু সময় থাকতে চাই। আমি কাজকে খুব মিস করি। পাশাপাশি মিস করি লাইট, সাউন্ড, ক্যামেরা, অ্যাকশন সবকিছু।’

যদিও এখনো নতুন কোনো সিনেমায় চুক্তিবদ্ধ হননি সঞ্জয়। তবে শোনা গেছে সিদ্ধার্থ আনন্দ পরিচালিত একটি সিনেমার কাজ প্রথমে শুরু করবেন তিনি। এটিই হবে তার জেল থেকে ফেরার পর প্রথম কাজ।

এছাড়া রাজকুমার হিরানি পরিচালিত মুন্না ভাই সিরিজের তৃতীয় কিস্তিতে দেখা যেতে পারে এ অভিনেতাকে। পাশাপাশি ধামাল সিনেমার তিন নম্বর সিক্যুয়েল নির্মাণের চিন্তা করছেন পরিচালক ইন্দ্র কুমার। সেখানে দেখা যেতে পারে সঞ্জয়কে। ও মাই গড সিনেমার পরিচালক উমেশ শুক্লা সঞ্জয়কে নিয়ে একটি সিনেমা নির্মাণ করেত চান। সঞ্জয় যখন জেলে ছিলেন তখন সিনেমাটির চিত্রনাট্য সঞ্জয়ের স্ত্রী মান্যতাকে দেখিয়েছিলেন শুক্লা।

অন্যদিকে সঞ্জয় দত্তের জনপ্রিয় কান্তি সিনেমার পরিচালক সঞ্জয় গুপ্তাও এ অভিনেতাকে নিয়ে সিনেমা নির্মাণে আগ্রহ প্রকাশ করেছেন। তবে এ বিষয়ে এখনো আনুষ্ঠানিক ঘোষণা পাওয়া যায়নি।