মেইন ম্যেনু

বঙ্গবন্ধুকে ছোট করতেই জিয়াকে স্বাধীনতা পদক

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে ছোট করতেই জিয়াউর রহমানকে মরণোত্তর স্বাধীনতার পদক দিয়েছিল বিএনপি-জামায়াত জোট সরকার। শনিবার জাতীয় প্রেসক্লাবের কনফারেন্স লাউঞ্জে বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক গোষ্ঠী আয়োজিত আলোচনা সভা ও স্বরচিত কবিতা পাঠ অনুষ্ঠানে আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য ও স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম এ কথা বলেন।

মোহাম্মদ নাসিম বলেন, স্বাধীনতার পদক দিয়ে বঙ্গবন্ধুকে তুলনা করা হয়েছে একজন সেক্টর কমান্ডরের সঙ্গে। স্বাধীনতার স্রষ্ঠাকে ছোট করার জন্যই তৎকালিন জোট সরকার বঙ্গবন্ধুর সঙ্গে জিয়াউর রহমানকে স্বাধীনতা পুরস্কার দেয়।

তিনি আরো বলেন, বঙ্গবন্ধু নিজে জিয়াউর রহমানকে বীরউত্তম উপাধী দিয়েছিলেন। তাহলে বলেন বঙ্গবন্ধু কি ভাবে তার অবদানকে অস্বীকার করলেন। কিন্তু আপনারা (বিএনপি) কি করলেন? বঙ্গবন্ধুর সঙ্গে জিয়াকে এক কাতারে নিয়ে এলেন।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, বঙ্গবন্ধু যে জিয়াকে পুরস্কার দিলেন সেই জিয়া পরিবর্তিতে তার সঙ্গে বেঈমানী করলেন। বঙ্গবন্ধুর খুনিদের অশ্রয় প্রশ্রয় দিয়ে বিভিন্ন দ্রুতাবাসে চাকরির সুযোগ দিয়েছিলেন জিয়াউর রহমান।

তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধুকে পাকিস্তান হাতের কাছে পেয়েও হত্যার সাহস পায়নি। অথচ এদেশের কয়েকজন বিশ্বাস ঘাতক তাকে হত্যা করেন। আর এ হত্যাকান্ডের বিচার যাতে না হয় সেজন্য খুনি মোশতাক ইমডেমনিটি অধ্যাদেশ জারি করে। আর দীর্ঘদিন ধরে জিয়াউর রহমান, এইচএম এরশাদ ও খালেদা জিয়া এই কালো আইন ধারণ করেন।

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪১তম শাহাদাৎ বার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। সংগঠনের সভাপতি চিত্রনায়ক মাসুম পারভেজ রুবেলের সভাপতিত্বে সভায় আরো উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগের আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক লে. কর্নেল মুহাম্মদ ফারুক খান, কবি ও নাট্যকার কাজী রোজী, আওয়ামী লীগের উপ-কমিটির সহ-সম্পাদক অ্যাডভোকেট বলরাম পোদ্দার, বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোটের সাধারণ সম্পাদক অরুণ সম্পাদক রানা প্রমুখ।