মেইন ম্যেনু

বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে সিনেমা বানালে সহায়তা দেবে সরকার

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সংগ্রামী জীবনের বিভিন্ন অধ্যায় নিয়ে চলচ্চিত্র নির্মাণ করলে সরকার সর্বাত্মক সহায়তা করবে বলে জানিয়েছেন শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমু।

মঙ্গলবার (২১ জুন) রাজধানীর হোটেল রাজমনি ঈশাখাঁতে এক আলোচনা সভায় তিনি এ কথা বলেন।

‘বঙ্গবন্ধু ও মুক্তিযুদ্ধের ওপর পূর্ণাঙ্গ চলচ্চিত্র নির্মাণ সময়ের দাবি’ শীর্ষক আলোচনা সভার আয়োজন করে সার্ক চলচ্চিত্র সাংবাদিক ফোরাম, বাংলাদেশ।

শিল্পমন্ত্রী বলেন, ‘বঙ্গবন্ধু আমাদের স্বাধীনতার স্থপতি। বাঙালির জাতির ইতিহাসে বঙ্গবন্ধু এক মহাকাব্য, একটি প্রতিষ্ঠান। বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে ইতোমধ্যে অসংখ্য কাব্যগ্রন্থ, গল্প, উপন্যাস, নাটক, স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র, ডকুমেন্টারি নির্মিত হয়েছে। কোনো রাজনৈতিক নেতাকে নিয়ে এত বেশি কবিতা, কাব্যগ্রন্থ, গল্প, উপন্যাস, নাটক, স্বল্পদৈঘ্য চলচ্চিত্র, ডকুমেন্টারি নির্মাণের ঘটনা পৃথিবীতে বিরল। এখন বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে চলচ্চিত্র নির্মাণ করা হলে এটি হবে জাতি জন্য সব চেয়ে বড় উপহার।’

তিনি আরো বলেন, ‘সরকার দেশীয় মেধাসম্পদ ও উদ্ভাবকের স্বার্থ সুরক্ষায় সচেষ্ট। ইতোমধ্যে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ৩ এপ্রিলকে জাতীয় চলচ্চিত্র দিবস হিসেবে ঘোষণা করেছেন। প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনায় শিল্প মন্ত্রণালয় চলচ্চিত্রকে শিল্প হিসেবে ঘোষণা করেছে। এ শিল্পের উন্নয়নে সরকারের পক্ষ থেকে সব ধরনের সহায়তা দেয়া অব্যাহত আছে এবং থাকবে।’

আমির হোসেন আমু বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রীর নেতৃত্বে বর্তমান সরকার ইতিবাচক সামাজিক পরিবর্তনের নতুন ধারা সূচনা করেছে। একে এগিয়ে নিতে হলে সুস্থ ধারার ও জীবন ঘনিষ্ট চলচ্চিত্র নির্মাণ করতে হবে। পাশাপাশি নতুন প্রজন্মের প্রতি সামাজিক দায়বদ্ধতা থেকে অশ্লীল ও মূল্যবোধবিরোধী চলচ্চিত্র নির্মাণ পরিহার করতে হবে।’

এসময় মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক বলেন, ‘এখন পর্যন্ত বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে পূর্ণদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র নির্মাণ হয়নি, এটা দুঃখজনক। এমন চলচ্চিত্র নির্মাণ করা এখন সময়ের দাবি। আজকের এই অনুষ্ঠানের মাধ্যমে তা এক ধাপ এগিয়ে যাবে।’

বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে কেউ পূর্ণদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র নির্মাণ করলে সরকার তাকে সহায়তা করবে বলে জানান এ মন্ত্রীও।

আলোচনা সভায় আরো উপস্থিত ছিলেন- পোশাক শিল্প মালিকদের সর্ববৃহৎ সংগঠন এফবিসিসিআইয়ের সাবেক সভাপতি কাজী আকরাম উদ্দিন আহম্মদ, আবদুল মোমেন গ্রুপের ডিএমডি মাঈদুদ্দিন মোমেন, শিল্পকলা একাডেমির সাবেক পরিচালক সফি কামাল প্রমুখ।