মেইন ম্যেনু

বছরে মাত্র দুবার ফেসিয়াল করেন জেরিন খান

সালমান খানের বিপরীতে ‘বীর’ সিনেমা দিয়ে বলিউডে যাত্রা শুরু হয়েছিল জেরিন খানের। সে সময় নিজের উজ্জ্বল ও আকর্ষণীয় ত্বকের কারণে সবার নজরে আসেন বলিউডের এই নায়িকা।

সবশেষ ‘হেট স্টোরি থ্রি’ সিনেমায় নিজের অভিজাত উপস্থিতি ও অভিনয়ের কারণে আবারও আলোচনায় চলে অসেন জেরিন খান। তাঁর এই সৌন্দর্যের গোপন রহস্য তুলে ধরা হয়েছে লাইফস্টাইল ও রূপচর্চাবিষয়ক ভারতীয় ওয়েবসাইট আইডিভা ডটকম-এ।

জেরিন খান মনে করেন, যখন কাজ থাকে না, তখন মেকআপ না করাই ভালো। তিনি বলেন, ‘কাজ না থাকলে বাইরে যাওয়ার আগে সবার প্রথমে আমি ফেসওয়াশ দিয়ে ভালো করে মুখ ধুয়ে নিই। এরপর আমার ডারমাটোলোজিস্টের দেওয়া হালকা ময়েশ্চারাইজার ব্যবহার করে সানস্ক্রিন লাগাই।’

কাজের প্রয়োজনে তো তাঁকে মেকআপ করতেই হয়। ভালো ব্র্যান্ডের মেকআপ ব্যবহার করেন তিনি। আর যখন জেরিন খান ভারতের বাইরে শুটিংয়ে থাকেন বা শুটিংয়ের জন্য বাইরে ঘুরতে যেতে হয়, তখন তাঁর সঙ্গে কিছু গুরুত্বপূর্ণ মেকআপ অনুষঙ্গ নিতে ভোলেন না।

এর মধ্যে ল্যানকম হাইপনোস ড্রামা মাশকারা, ডিওর অ্যাডিক্ট লিপ গ্লো কালার অ্যাওয়াকনিং লিপবাম, গ্লামার মোশিনো পারফিউম, লা রোশ-পওজি সানস্ক্রিন ও দ্য বডি সোপ লিপ অ্যান্ড চিক স্টেইন অন্যতম।

শুনে অবাক হবেন, জেরিন খান অনেক বেশি অনুপ্রাণিত হন কারিনা কাপুরকে দেখে। তিনি বলেন, ‘আমার কাছে কারিনা কাপুরকে অনেক বেশি সুন্দরী মনে হয়। আমি ব্যক্তিগতভাবে তাঁর সঙ্গে দেখা করি এবং তাঁকে সে সময় মেকআপ ছাড়া দেখতে পাই। তাঁর ত্বক আসলেই সুন্দর। কারিনা নিজের ত্বককে এতটাই স্বাভাবিক রাখে, যা আমার খুবই ভালো লাগে এবং এখনো সে অনেক বেশি আকর্ষণীয়।’

এ তো গেল অনুপ্রেরণার কথা। কিন্তু জেরিন খানের ত্বক এতটা উজ্জ্বল ও মসৃণ হওয়ার আসল কারণটা কী? তিনি কি গোপন কোনো ফেসিয়াল করেন? এ প্রশ্নের উত্তরে হাসতে হাসতে জেরিন খান জানালেন, এর কোনো গোপন রহস্য নেই। বছরে মাত্র দুবার তিনি ফেসিয়াল করেন!

জেরিন খান বলেন, ‘প্রতি ছয় মাস পর আমি ফেসিয়াল করি। যখন আমার মনে হয়, আমার ত্বক মলিন হয়ে যাচ্ছে, তখন আমি আমার ডারমাটোলোজিস্ট ড. জয়শ্রী শারদের কাছে যাই এবং তিনি আমাকে একটি ফ্রুট ফেসিয়াল দেন। মূলত ত্বক নিয়ে আমি কোনো ধরনের গবেষণা করতে পছন্দ করি না।’

জেরিন খান আরো বলেন, ‘যদি কোনো মানুষ মনের ভেতর থেকে সুখে না থাকে, তাহলে দামি মেকআপ ব্যবহার করলেও তাকে সুন্দর লাগবে না। আপনাকে অবশ্যই সুখী হতে হবে, যদি আপনি নিজেকে সুন্দর দেখাতে চান।’