মেইন ম্যেনু

বদহজমের সমস্যা থেকে মুক্তি পাওয়ার উপায়

রান্না সুস্বাদু হলে অনেকেই একটু বেশিই খেয়ে ফেলেন। আর ঈদ উৎসব হলেতো কথাই নেই। বিশেষ করে কোরবানীর ঈদে একেক বন্ধুর বাসার রান্নার টেস্ট গ্রহণ করতে গিয়ে অনেকেই খেয়ে ফেলেন অনেক বেশি। যার ফলে তাকে ভুগতে হয় বদহজমের সমস্যায়। চিকিৎসা বিজ্ঞানের ভাষায় একে বলে ডিসপেপসিয়া। পাকস্থলীর পরিপাক রস নিঃসরণে সমস্যা হলেই ডিসপেপসিয়া হয়। মসলা ও চর্বিযুক্ত খাবার খাওয়ার ফলেই এমনটা হয়ে থাকে। এছাড়াও বিভিন্ন ধরণের শারীরিক সমস্যার কারনেও হতে পারে বদহজমের সমস্যা। পেট ফাঁপা, পেটে গ্যাস হওয়া, পেট ব্যথা করা, পেটের উপরের দিকে জ্বালা-পোড়া করা, মুখে আম্লিক স্বাদ লাগা এবং বমি হওয়া এগুলোই ডিসপেপসিয়া বা বদ হজমের লক্ষণ। বদহজমের সমস্যা থেকে মুক্তি পাওয়ার সহজ কিছু উপায় জানবো আজ।

১। আদা

পাচক রস ও এনজাইমের প্রবাহকে উদ্দীপ্ত করতে পারে আদা। তাই বদহজমের সমস্যা দূর করার জন্য আদা অনেক কার্যকরী, বিশেষ করে অতিরিক্ত খাওয়ার ফলে সৃষ্ট বদহজমের ক্ষেত্রে ভালো প্রতিকার আদা। অনেক বেশি খেয়ে ফেলার পরে আদার টুকরায় লবণ ছিটিয়ে নিয়ে চিবাতে থাকুন। খেতে পারেন ১ কাপ আদা চা অথবা ১ কাপ কুসুম গরম পানিতে ১ চামচ মধু ও ২ চামচ আদার রস মিশিয়ে পান করতে পারেন।

২। বেকিং সোডা

পাকস্থলীর এসিডের পরিমাণ বৃদ্ধি পেলেও হতে পারে বদহজম। এই সমস্যা দূর করার জন্য সবচেয়ে সহজ ও কার্যকরী প্রতিকার হচ্ছে বেকিং সোডা যা অ্যান্টাসিডের মত কাজ করে। এজন্য আধা গ্লাস পানিতে আধা চামচ বেকিং সোডা মিশিয়ে পান করুন।

৩। জিরা

প্রাচীন কাল থেকেই হজমজনিত সমস্যা দূর করার কাজে আয়ুর্বেদিক প্রতিকার হিসেবে ব্যবহার হয়ে আসছে জিরা। অগ্নাশয়ের এনজাইম নিঃসরণকে উদ্দীপিত করে হজমে সহায়তা করে জিরা। ১ চামচ ভাঁজা জিরা ১ গ্লাস পানিতে মিশিয়ে পান করুন। ১ গ্লাস ঘোলের মধ্যে ১ চামচের ৪ ভাগের ১ ভাগ পরিমাণ ভাঁজা জিরা ও সম পরিমাণ গোলমরিচের গুঁড়া মিশিয়ে পান করুন।

৪। পুদিনা চা

রিচ ফুড খাওয়ার পরে ১ কাপ পুদিনা চা বা ক্যামোমিল চা বা গ্রিনটি পান করলে হজমে সাহায্য করে।