মেইন ম্যেনু

বন্ধুর ধর্ষণ সরাসরি সম্প্রচার !

চোখের সামনে এক বন্ধুর যৌন হেনস্থা হতে দেখলে আর এক বন্ধুর স্বাভাবিক প্রতিক্রিয়া কী হওয়া উচিত্? ক্ষোভে ফে‌টে পড়া? বন্ধুকে বাঁচানোর চেষ্টা?

কিন্তু সে সব কোনো কিছু না করে যদি বন্ধুর ওপর যৌন হেনস্থার ছবি কেউ ভিডিও তুলে সরাসরি সম্প্রচার করে! সব ভাবনাকে ওলট-পালট করে সেই অদ্ভুত নির্মম আচরণের সাক্ষী থাকল যুক্তরাষ্ট্র। ওহাইয়োর এক কিশোরী একটি সোশ্যাল মিডিয়া অ্যাপ ব্যবহার করে বন্ধুর ধর্ষণের লাইভ স্ট্রিমিং করল!

১৮ বছরের মারিনা লোনিনা তার ১৭ বছরের বন্ধুর সঙ্গে কলম্বাসের বাসিন্দা ২৮ বছরের রেমন্ড গেটসের বাড়ি আড্ডা দিতে গিয়েছিল। সেখানেই মারিনার ১৭ বছরের সেই বন্ধুকে যৌন হেনস্থা করে গেটস। অভিযোগ, সেই নৃশংসতার লাইভ স্ট্রিমিং করে মারিনা। এই ঘটনার আগের দিন নিগৃহীতার অজান্তেই তার কিছু ব্যক্তিগত ছবি তোলে মারিনা ও গেটস।

নিগৃহীতার এক বন্ধু সেই ছবি দেখতে পেয়েই পুলিশের কাছে অভিযোগ দায়ের করেন। গেটস এবং লোনিনা আপাতত পুলিশের হেফাজতে। তাদের বিরুদ্ধে ধর্ষণ, অপহরণ ও যৌন নৃশংসতার অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। সূত্র: আনন্দবাজার।