মেইন ম্যেনু

বন্যার পানিতে দুই সপ্তাহে ৩৭ শিশুর মৃত্যু

দেশের বিভিন্ন বন্যাদুর্গত এলাকার পরিবারগুলোতে পানিতে ডুবে শিশু মৃত্যু আতঙ্ক বিরাজ করছে। গত দুই সপ্তাহে পানিতে ডুবে ৩৭ শিশুর মৃত্যু হয়েছে। এদের মধ্যে এক থেকে সাত বছর বয়সী শিশুর সংখ্যাই বেশি। শিশু ছাড়াও পানিতে ডুবে বৃদ্ধরাও মারা যাচ্ছেন।

স্বাস্থ্য অধিদফতরের ন্যাশনাল ক্রাইসিস ম্যনেজমেন্ট সেন্টার ও রোগ নিয়ন্ত্রণ সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

পানিতে ডুবে মৃত শিশুদের মধ্যে কুড়িগ্রামে ৪ জন, সিরাজগঞ্জে ৫ জন, গাইবান্ধায় ৭ জন, জামালপুরে ১৬ জন, মৌলভীবাজারে ২ জন ও কক্সবাজারে ৩ জনের মৃত্যু হয়েছে।

এছাড়া বন্যাদুর্গত এলাকা জামালপুরের বকশিগঞ্জে পানিতে ডুবে ৮০ বছরের বৃদ্ধ জানু মিয়া মারা যান। সাপের কামড়ে কুড়িগ্রামে ১ জন ও জামালপুরে ২ জনের মৃত্যু হয়েছে।

স্বাস্থ্য অধিদফতরের ন্যাশনাল ক্রাইসিস ম্যনেজমেন্ট সেন্টার ও রোগ নিয়ন্ত্রণ কক্ষের ইনচার্জ ডা. আয়েশা আক্তার এসব তথ্যের সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, বন্যাদুর্গত এলাকায় মোট ১ হাজার ১৪৪টি টিম কাজ করছে। এসব এলাকায় মোট ১ হাজার ৭৮২ জন ডায়রিয়ায় আক্রান্ত হয়েছেন।

প্রসঙ্গত, বর্তমানে দেশের ১২টি জেলার ১০৩টি উপজেলা ও ৯৪৯টি ইউনিয়নের মধ্যে ৪০টি উপজেলার ১০৪টি ইউনিয়ন বন্যাদুর্গত। এসব এলাকার ঘরবাড়ি বন্যার পানিতে প্লাবিত হয়েছে। ঘরে পানি প্রবেশ করলেও অনেক পরিবার চুরির ভয়ে বাড়ি ছেড়ে সরকারি আশ্রয়কেন্দ্রে যাচ্ছেন না। অনেকেই বাঁশের মাচা বেঁধে বসবাস করছেন। এতে করে অসর্তকতাবশত শিশুরা পানিতে ডুবে মারা যাচ্ছেন। এছাড়া সাপের কামড়ে মারা যাচ্ছেন কেউ কেউ।



« (পূর্বের সংবাদ)



মন্তব্য চালু নেই