মেইন ম্যেনু

বরফে রেখে ওজন বাড়ানো হয় গরুর মাংসের!

জবাই করার আগে গরু শিরায় শিরায় পানি ঢুকিয়ে মাংসের ওজন বাড়ানো হতো আগে। কিন্তু দিন পাল্টিয়েছে, তাই পাল্টে গেছে সিস্টেমেরও। এবার ওজন বাড়াতে বরফে রাখা হয় মাংস। তারপর সেই মাংস ক্রেতাদের কাছে বিক্রি করা হয়।

রাজধানীর হাতিরপুল কাঁচাবাজারে আজ শুক্রবার সাকালে এমন ঘটনাই ধরা পড়েছে র‍্যাবের ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযানে। সকাল সাড়ে ১০টায় ব্যাবের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সারোয়ার আলমের নেতৃত্বে র‌্যাবের একটি দল হাতিরপুল বাজারে অভিযান পরিচালনা করেন।

অভিযান চালিয়ে পচা, মেয়াদোত্তীর্ণ মাছ-মাংস ও অন্যান্য খাদ্যপণ্য বিক্রির দায়ে ১ লাখ ১৩ হাজার টাকা জরিমানাও করেছেন ওই আদালত। প্রায় আড়াই ঘণ্টার অভিযানে এই বাজার থেকে জব্দ করা হয়েছে ১০০ কেজি গরুর মাংস।

বাজারে পচা মাছ, মাংসসহ কয়েকটি দোকানে বেশি দামে পণ্য বিক্রির অভিযোগে পৃথকভাবে ১৬ ব্যবসায়ীকে মোট ১ লাখ ১৩ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।

জানা গেছে, বরফে রাখা হলে মাংস শক্ত হয় ও ওজন বাড়ে। এভাবে চার থেকে পাঁচ দিন মাংস রেখে দেয়া হতো। ওই বাজারের তিন ব্যবসায়ী বরফভর্তি কর্কশিটের বক্সের ভেতর গরুর মাংস রাখতেন।

এই মাংস আবার সদ্য জবাই করা গরুর মাংসের সঙ্গে মিশিয়ে দিতেন। এভাবে সিটি করপোরেশনের নির্ধারিত মূল্য ৪২০ টাকায় বিক্রি করে বেশি লাভ করতেন এই তিন মাংস ব্যবসায়ী।

এ সময় নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সারোয়ার আলম সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে বলেন, ‘আমরা অভিযান চালাই, জরিমানা করি, শাস্তি দেই। কিন্তু চলে যাওয়ার পর আবারও একই কাজ করে তারা। এর জন্য শুধুমাত্র জরিমানা করে বা শাস্তি দিয়ে বাজার নিয়ন্ত্রণ করা যাবে না। এর জন্য ব্যবসায়ীদের নৈতিকভাবে সচেতন হতে হবে।’

বাজার মনিটরিং ঠিকভাবে করা হচ্ছে কি না জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘অভিযানে আসার আগে আমাদের টিম এসে বাজার পরিদর্শন করে যায়। ফলে আমরা জানতে পারি কোথায় কি হচ্ছে। আমরা সেভাবেই ব্যবস্থা নিয়ে থাকি।’