মেইন ম্যেনু

বরিশালের ২৭২ ইউনিয়নের ১৪ হাজার ২০৭ প্রার্থীর মাঝে প্রতীক বরাদ্দ

কল্যাণ কুমার চন্দ, বরিশাল প্রতিনিধি: প্রথমদফার ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে বরিশাল বিভাগের ছয় জেলার ২৭২টি ইউনিয়নের চেয়ারম্যান, সাধারণ ও সংরক্ষিত সদস্য পদের ১৪ হাজার ২০৭জন প্রার্থীর মধ্যে বৃহস্পতিবার সকাল দশটা থেকে প্রতীক বরাদ্ধ দেয়া হয়েছে। সবার আগে আওয়ামীলীগ মনোনীত প্রার্থীদের মধ্যে নৌকা ও বিএনপির প্রার্থীর মধ্যে ধানের শীর্ষ প্রতীক বরাদ্ধ দেয়ার পর অন্যান্য প্রার্থীদের মধ্যে প্রতীক বরাদ্দ দিয়েছেন সংশ্লিষ্ট নির্বাচন কর্মকর্তারা।

আঞ্চলিক নির্বাচন কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে, এবারে নির্বাচনে বরিশাল বিভাগের ছয় জেলায় ২৭২টি ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে ১ হাজার ৩৩২ জন, সাধারন সদস্য পদে ৯ হাজার ৯৯৯জন এবং সংরক্ষিত মহিলা সদস্য পদে ২ হাজার ৮৭৬ জন প্রার্থী নির্বাচনে অংশগ্রহণ করেছেন। এরমধ্যে বরিশাল জেলার দশটি উপজেলার মধ্যে বানারীপাড়ার উদয়কাঠী ইউনিয়নে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী বিনা প্রতিদ্বন্ধিতায় নির্বাচিত হওয়ায় ৭৩টি ইউনিয়ন পরিষদে ৩৩৭জন চেয়ারম্যান প্রার্থী প্রতিদ্বন্ধিতা করছেন।

বরিশাল সদর উপজেলার চরকাউয়া ইউনিয়নের আওয়ামী লীগ প্রার্থী মনিরুল ইসলাম ছবি বলেন, এবারে প্রথম দলীয় প্রতীকে নির্বাচন হওয়ায় জনতার মধ্যে বেশ সাড়া পড়েছে। জেলার দু’বারের শ্রেষ্ঠ মাহিলাড়া ইউনিয়ন পরিষদের বর্তমান চেয়ারম্যান ও আ’লীগ মনোনীত চেয়ারম্যান প্রার্থী সৈকত গুহ পিকলু বলেন, দলের প্রতীক নৌকার জোয়ার ক্রমেই বৃদ্ধি পেতে শুরু করেছে। বাবুগঞ্জের বীরশ্রেষ্ঠ জাহাঙ্গীর নগর ইউনিয়নের বিএনপি মনোনীত চেয়ারম্যান প্রার্থী অধ্যাপক কামরুল আহসান হিমু বলেন, ভোটাররা নির্বিঘেœ ভোট দিতে পারলে তিনি বিজয়ী হবেন। জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা আব্দুল হালিম খান বলেন, বৃহস্পতিবার প্রতীক পাওয়ার পর থেকেই প্রার্থীরা আনুষ্ঠানিকভাবে প্রচারে নামতে পারবেন। আগামী ২২মার্চ প্রথম দফার নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।

আঞ্চলিক নির্বাচন কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে, প্রথমধাপের ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের শেষদিনে (বুধবার) বরিশাল বিভাগের ৬ জেলায় ১২৩ জন চেয়ারম্যান প্রার্থী মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করেছেন। চেয়ারম্যান প্রার্থীদের মধ্যে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী ৮১ জন, বিএনপির বিদ্রোহী ১২ জন, জাতীয় পার্টির ৪ জন এবং স্বতন্ত্র ২৬ জন চেয়ারম্যান প্রার্থী তাদের মনোনয়ন প্রত্যাহার করে নিয়েছেন। বরিশাল জেলায় আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী ২১, বিএনপির বিদ্রোহী ৩, জাতীয় পার্টির ৩ জন এবং স্বতন্ত্র ৯ জন। বরগুনা জেলায় আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী ১০ জন, বিএনপির বিদ্রোহী ১ জন ও স্বতন্ত্র ৪ জন। পটুয়াখালী জেলায় আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী ১১, বিএনপির ২ ও স্বতন্ত্র ৫ জন। ঝালকাঠীতে আওয়ামী লীগের ও জাতীয় পার্টির ১ জন করে। পিরোজপুর জেলায় আওয়ামী লীগের ১৫ জন, বিএনপির বিদ্রোহী ৩ ও স্বতন্ত্র ৭ জন। ভোলায় আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী ২০জন, বিএনপির বিদ্রোহী ৩ এবং স্বতন্ত্র একজন প্রার্থী মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করেছেন।

সূত্রমতে, এবারই সর্বপ্রথম দলীয় মনোনয়ন নিয়ে দলীয় প্রতীকে ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনকে ঘিরে প্রার্থী ও তাদের সমর্থকদের মধ্যে ব্যাপক উৎসাহ বিরাজ করছে। প্রতীক নেয়া রাজনৈতিক দলের প্রার্থীদের মধ্যে আওয়ামী লীগ, বিএনপি, জাতীয় পার্টি, ওয়াকার্স পার্টি, ইসলামী আন্দোলন এবং স্বতন্ত্র প্রার্থীরা প্রতিদ্বন্ধিতা করছেন। নৌকা প্রতীকের প্রার্থীরা ফুরফুরে মেজাজে থাকলেও বিএনপি এবং জাতীয় পার্টির প্রার্থীরা বলছেন নির্বাচন কমিশন সুষ্ঠুভাবে নির্বাচন সম্পন্ন করলে আর ভোটররা নির্বিঘেœ ভোট দিতে পারলে তারা জয়ের ব্যাপারে শতভাগ আশাবাদি।