মেইন ম্যেনু

বর্তমান পত্রিকার সম্পাদক ফের গ্রেপ্তার

বর্তমান পত্রিকার সম্পাদক ও প্রকাশক এবং মুন গ্রুপের চেয়ারম্যান মিজানুর রহমানকে আবার গ্রেপ্তার করা হয়েছে। এবার দুর্নীতি দমন কমিশন রাজধানী থেকে তাকে গ্রেপ্তার করে। অগ্রণী ব্যাংকের ২২০ কোটি টাকা আত্মসাতের অভিযোগে ধানমন্ডি থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়।

দুর্নীতি দমন কমিশনের জনসংযোগ কর্মকর্তা প্রণব কুমার ভট্টাচার্য বলেন, অগ্রণী ব্যাংকের মামলায় ধানমন্ডি থেকে মিজানুর রহমানকে গ্রেপ্তার করা হয়। দীর্ঘ কারাভোগের পর সম্প্রতি তিনি জেল থেকে মুক্তি পান।

অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, মিজানুর রহমান তার মালিকানাধীন তিনটি ভুয়া প্রতিষ্ঠান মেসার্স মুন ইন্টারন্যাশনাল প্রেন্টিং প্রেসের অনুকূলে ৪৯ কোটি টাকা, মেসার্স মুন বাংলাদেশ লিমিটেডের অনুকূলে ১৪১ কোটি টাকা ও মেসার্স এম এর ট্রেডিংয়ের অনুকূলে ৮০ কোটি টাকাসহ মোট ২৭০ কোটি টাকা মতিঝিল শাখা (প্রিন্সিপাল) থেকে ঋণ হিসেবে গ্রহণ করেন। যদিও কাগজপত্রে তিনি ৮১০ কোটি টাকার জামানত দেখিয়েছেন। তবে প্রকৃতপক্ষে জামানতকৃত এসব মর্টগেজ সবই জাল ও ভুয়া। সরকারি জমির ভুয়া কাগজপত্র দেখিয়ে ৮১০ কোটি টাকার মর্টগেজ দেখানো হয়েছে। পরবর্তীতে ওই ৩টি ভুয়া কোম্পানির অনুকূলে নেয়া এসব টাকা ব্যাংকের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের যোগসাজশে আত্মসাত করেন।

দুদকে আসা এসব অভিযোগ যাচাই শেষে অনুসন্ধানে নামে সংস্থাটি। এজন্য দুদকের পরিচালক সৈয়দ ইকবাল হোসেনকে তদন্তকারী কর্মকর্তা নিয়োগ করে দুই সদস্যবিশিষ্ট অনুসন্ধানী টিম করে কমিশন। ওই টিমের অপর সদস্য হলেন, দুদকের উপসহকারী পরিচালক মো. জিন্নাতুল ইসলাম।