মেইন ম্যেনু

পতিসরে কবিগুরুর ১৫৫তম জন্মোৎসবের সমাপনীতে গবেষকদের মন্তব্য

“বর্তমান সমাজ ব্যবস্থায় রবীন্দ্র দর্শন প্রয়োগের বিকল্প নেই”

কাজী আনিছুর রহমান, রাণীনগর (নওগাঁ) থেকে : সমাজে বসবাসকারী মানুষের জন্য যে ৫ টি মৌলিক অধিকার সংবিধানে সংরক্ষিত আছে। সেই অধিকারগুলোর কথা বহু আগেই বলেছিলেন রবীন্দ্রনাথ। নওগাঁর কালীগ্রামে জমিদারী পরিচালনা করতে এসে গরীব প্রজাদের মুক্তির কথা ধরা দিয়েছিলো বিশ্ব কবির চেতনায়। বিশ্ব কবির সেই চেতনার প্রয়োগ করতে পারলেই সমাজে শান্তি, অগ্রগতি ও মুক্তি সম্ভব।
কবি গুরুর ১৫৫ তম জন্মোৎসব উপলক্ষে তাঁর নিজস্ব জমিদারী কাচারী বাড়ি পতিসরে তিন দিনের সমাপনীতে মঙ্গলবার বাংলা একাডেমির উদ্যোগে আলোচনা সভায় বক্তারা এসব কথা বলেন।

পতিসরের দেবেন্দ্র মঞ্চে আয়োজিত অনুষ্ঠানে রবীন্দ্রনাথের গ্রাম উন্নয়ন ও শিক্ষা চিন্তা নিয়ে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন অধ্যাপক জুলফিকার মতিন। নওগাঁর জেলা প্রশাসক ড. মো: আমিনুর রহমানের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন রবীন্দ্র জার্নালের সম্পাদক মো: ইসরাফিল আলম এমপি, রাজশাহী ডিআইজি (প্রিজন) সাহিত্যিক বজলুর রশিদ, নওগাঁর পুলিশ সুপার মোজাম্মেল হক, রবীন্দ্র গবেষক অধ্যাপক সনৎ কুমার, অধ্যাপক গোলাম কবির, বাংলা একাডেমির পরিচালক মোহাম্মাদ আব্দুল হাই, সাহিদা খাতুন, আত্রাই উপজিলো চেয়ারম্যান এবাদুর রহমান, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোখলেছুর রহমান, রবীন্দ্র স্মৃতি সংগ্রাহক এম মতিউর রহমান প্রমুখ।

আলোচনা সভা শেষে স্থানীয় শিল্পিরা মনোজ্ঞ সাংকৃতিক অনুষ্ঠান পরিবেশন করে। একই মঞ্চে চৌপাস নাট্যাঞ্চল আয়োজিত কবিগুরুকে নিয়ে নাগর নামের একটি নাটক মঞ্চস্থ হয়।

এর আগে রোববার জাতীয় ভাবে কবিগুরুর ১৫৫তম জন্মোৎসব উদযাপন করা হয়। দ্বিতীয় দিনে স্থানীয় ভাবে কবির কর্মময় জীবন নিয়ে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।