মেইন ম্যেনু

বলতে পারেন, যেসব মহিলারা জেগে ঘুমান তারা কারা?

কোনো কারণে রাত জাগতে হলে, প্রায়ই আমরা আক্ষেপ করে থাকি, ‘কখন যে দু’চোখের পাতা একটু এক করব!’ কিন্তু সত্যি যেসব মানুষ কোনো সময়ের জন্যই দুচোখের পাতা এক করতে পারেন না, তাদের কথা কখনো শুনেছেন? তারা কারা? কেমন অনুভূতি হয় তাদের?

উত্তর ইংল্যান্ডের ৩১ বছর বয়সী ফোবে ক্যাম্পবেল বা প্রেস্টন নিবাসী বছর ২৯-এর আইনের ছাত্রী এম্মা ডারলে হলেন সেইসব মহিলা যাদের দু’চোখের পাতা সত্যিই কখনো এক হয় না। কারণ, এরা প্রত্যেকেই ‘Nocturnal lagophthalmos’ নামক রোগে আক্রান্ত। এই রোগ হলে, ঘুমের সময় দু’চোখের পাতা এক হয় না।

এক্ষেত্রে ঘুমের কোনো সমস্যা হয় না। কিন্তু অন্য বেশ কিছু শারিরীক ও সামাজিক সমস্যা দেখা যায়। যেমন, চোখে নানান রকম সংক্রমণ ঘটতে পারে এবং চোখ খোলা থাকায় টি.ভি-র রিমোট থেকে নির্গত ইনফ্রা রেড রশ্মি বা যেকোনো রকম সাধারণ আলোতেও অতিসহজেই ঘুম ভেঙে যায়। ফলে এই ধরণের রোগীরা চোখে এক ধরণের ঢাকনা ব্যবহার করেন ঘুমের সময়।

এর পাশাপাশি সামাজিক সমস্যাও কম নেই। যেমনটা ঘটেছিল ফোবে ক্যাম্পবেলের সঙ্গেই একবার- ফোবে ট্রেনে করে যাচ্ছিলেন এবং ঘুমোচ্ছিলেনও বটে। কিন্তু তাকে দেখে তো বোঝার জো নেই যে তিনি ঘুমিয়ে। তাই এক সহযাত্রী কথা বলতে যান এবং উত্তর না পেয়ে যার পর নাই বিরক্ত হন ফোবের ‘অভদ্রতা’ দেখে। কারণ ঘুমন্ত ফোবে, তো কথা বলেননি ওনার সঙ্গে।

তাহলেই বুঝে দেখুন! কত রকম সমস্যা আছে এই দুনিয়ায়। আর আমরা এক রাত জাগলেই কত কথা বলি ‘চোখের পাতা না জোড়া’ নিয়ে।-জিনিউজ



« (পূর্বের সংবাদ)