মেইন ম্যেনু

বসন্ত বরণে সাজের বাহার

বাঙালিয়ানা যেকোনো উৎসবে মেয়েদের সাজে প্রথম পছন্দ শাড়ি। সময় এবং উৎসব বিবেচনায় শাড়ির রঙ সম্পর্কেও এখন সবাই অভিজ্ঞ। পছন্দের শাড়ির সঙ্গে তাই মিলিয়ে নেয়া চাই উপযোগী সাজ-সরঞ্জামাদি। ট্রেন্ড অনুযায়ী সাজ আর রুচি অনুযায়ী অনুষঙ্গ কী কী হতে পারে সে বিষয়েও কিছু ধারণা নেয়া যেতে পারে।

আসছে ঋতুরাজ বসন্ত। প্রকৃতিতে তার ফিসফিস আলাপ শোনা যাচ্ছে এরই মধ্যে। তাইতো রমণীরাও ব্যস্ত তাকে হাসি আনন্দে বরণ করে নিতে। এমন দিনে পছন্দের শাড়ির সঙ্গে পরিহিত ব্লাউজে আনতে পারেন বিশেষত্ব। ঘটি হাতার ব্লাউজ বা থ্রি কোয়ার্টার হাতা আবার গলায় কুচি দিয়ে তৈরি করতে পারেন সেকেলে সৌখিন আবহ। শাড়ি পরার ক্ষেত্রে পহেলা ফাল্গুনে এক প্যাঁচেই বেশ মানাবে। ফাল্গুনেও শীতের হালকা আমেজ থেকে যায়। তাই মেকআপ খুব গাঢ় না করে হালকা করে সেজে নিতে পারেন।

মেকআপ নেয়ার আগে মুখমণ্ডলটাকে মেকআপ উপযোগী করে তুলতে ভালোভাবে ক্লিনজিং করে নিন। এবার ময়েশ্চারাইজিং ক্রিম লাগিয়ে নিন ১০ মিনিট অপেক্ষা করুন। তারপর ফাউন্ডেশনের সঙ্গে কয়েক ফোঁটা পানি মিশিয়ে মুখমণ্ডলে লাগিয়ে নিন। ফাউন্ডেশন মসৃণভাবে ত্বকে মিশিয়ে নিন। তারপর হালকা ফেসপাউডার বুলিয়ে নিন। ত্বকের রঙের সঙ্গে মিলিয়ে শেড নির্বাচন করুন। এবার চোখদুটোকে সাজিয়ে নিন একটু গাঢ় করে মাসকারা, আইলাইনার, কাজল আর হালকা আইশ্যাডো দিয়ে। অবশেষে লিপস্টিক আর কপালে একটি লাল রঙের বড় টিপ। হালকা লিপগ্লস বুলিয়ে নিতে পারেন ঠোঁটে। লিপলাইনার একটু গাঢ় রঙের বেছে নিন। বসন্ত উত্সবের সাজ এখন আর একই ঢংয়ে সীমাবদ্ধ নেই। যেমন ফুল শুধু খোঁপা নয়, চুলের নানা রকম স্টাইলের সঙ্গে ভিন্ন ভিন্ন ফুল ও ফুলের মালা ব্যবহার করা হচ্ছে হাতে, কপালে, পায়ে। ফাল্গুনকে বরণ করতে একটু অন্য রকম সাজে মেয়েরা তৈরি হতে চাইছেন নিজস্ব স্টাইলে।

গয়না হিসেবে হাতে, গলায়, কানে, কোমরে ফুল দিয়ে সাজতে পারেন এই বসন্তে। সৌন্দর্যকে আরও বাড়িয়ে তুলতে ফুল অনেক গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। আবার কোনো সাধারণ জায়গায় ফুলের ভারী গয়না ব্যবহার করলে সেটা খুবই বেমানান লাগে। এসব জায়গায় দু’একটা ফুল মাথায় লাগাতে পারেন। চুলে এখন অনেকেই গাজরা ব্যবহার করে।

অনেকে সাজের ক্ষেত্রে আর্টিফিসিয়াল ফুলও ব্যবহার করেন। ফুলের সাজে প্রকৃতির মতো আমরাও সাজি। এ সময়ে ফুল দিয়ে বানানো নানা ডিজাইনের গহনা ললনাদের কেশভর্তি চুলে শোভা পায়, যা বসন্তকে পরিপূর্ণ করে।