মেইন ম্যেনু

বাঁচানো গেল না শিশুটিকে

দক্ষিণ কেরানীগঞ্জে একই পরিবারের দগ্ধ পাঁচ সদস্যের মধ্যে এক শিশুর মৃত্যু হয়েছে।

বৃধবার ভোরে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালের বার্ন ইউনিটের নিবিড় পরিচর্যাকেন্দ্রে (আইসিইউ) চিকিৎসাধীন অবস্থায় শিশুটির মৃত্যু হয়। গত ২১ আগস্ট দগ্ধ হয়েছিলো সে।

নিহত শিশুর নাম আব্দুল গনি (৫)। তার শরীরের ৪০ শতাংশ পুড়ে গিয়েছিলো বলে চিকিৎসকরা জানিয়েছেন।

বার্ন ইউনিটে চিকিৎসাধীন পরিবারের অপর সদস্যরা হলেন- মো. রিপন (৪০), তার স্ত্রী মলিদা (৩৩), মেয়ে রিপা (১৫) ও ছেলে মারুফ হোসেন (১০)।

গত ২১ আগস্ট রাতে সিলিং ফ্যান থেকে শর্টসার্কিট হয়ে বাড়িতে আগুন লাগে। এতে একই পরিবারের পাঁচ সদস্য দগ্ধ হন। প্রতিবেশীরা তাদের উদ্ধার করে ঢামেক হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে ভর্তি করেন।

ঢামেক হাসপাতালের আবাসিক চিকিৎসক পার্থ শঙ্কর পাল জানান, এ ঘটনায় রিপনের শরীরের ৬৫ শতাংশ, মলিদা বেগমের ৩১ শতাংশ, আব্দুল গনির ৪০ শতাংশ, মারুফ হোসেনের ২২ শতাংশ ও রিপার শরীরের ২০ শতাংশ পুড়ে গেছে।



« (পূর্বের সংবাদ)