মেইন ম্যেনু

বাঁশখালী মামলার আসামির ফাঁসির দাবি ছাত্রলীগের

চট্টগ্রামের বাঁশখালীতে চারজন নিহত হওয়ার ঘটনায় মামলার আসামি বসতভিটা ও গোরস্থান রক্ষা কমিটির আহ্বায়ক লিয়াকত আলীর ফাঁসির দাবিতে মানববন্ধন করেছে উপজেলা ছাত্রলীগ। আজ মঙ্গলবার বিকেলে বাঁশখালী উপজেলা কার্যালয়ের সামনে এই মানববন্ধন করা হয়।

এ সময় বাঁশখালী উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি ইমরানুল হক অভিযোগ করেন, ‘এলাকার নিরীহ লোকজনকে উসকানি দিয়ে রাস্তায় নামিয়েছেন লিয়াকত আলী। তাঁর কারণে চারজন লোকের মৃত্যু হয়েছে। তাই তাঁর ফাঁসির দাবি জানানো হচ্ছে। প্রকল্পটি স্থাপন হবে কি না, সেটি সরকারের বিষয়। দেশের স্বার্থে হলে আমাদের কোনো আপত্তি নেই।’

গতকাল সোমবার বিকেলে বাঁশখালী উপজেলার গণ্ডামারা ইউনিয়নে বিদ্যুৎকেন্দ্র স্থাপনের পক্ষে-বিপক্ষের লোকজন ও পুলিশের মধ্যে সংঘর্ষে গুলিতে দুই ভাইসহ চারজন নিহত হন। এ ঘটনায় পৃথক তিনটি মামলা হয়েছে। এর মধ্যে দুটি মামলা করেছে নিহত ব্যক্তিদের পরিবার ও একটি মামলা করেছে পুলিশ। এসব মামলায় আসামি করা হয়েছে দেড় থেকে দুই হাজার মানুষকে।

আজ মঙ্গলবার সকালে বাঁশখালী থানায় এসব মামলা করা হয়। এর মধ্যে নিহত আনোয়ারুল ইসলাম ও মরতুজা আলীর ভাই মাওলানা বশির আহমেদ বাদী হয়ে লিয়াকত আলীসহ ছয়জনের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাতপরিচয় ১ হাজার ৪০০ থেকে ১ হাজার ৫০০ জনকে আসামি করে একটি হত্যা মামলা করেন।

এ বিষয়ে লিয়াকত আলী বলেন, ‘এলাকার স্বার্থে এলাকার লোকজন প্রকল্পের বিরোধিতা করছে। এখানে আমার কোনো রাজনীতি নেই। আন্দোলন ধামাচাপা দিতে মিথ্যা মামলায় আসামি করা হয়েছে।’

চট্টগ্রামের অতিরিক্ত জেলা পুলিশ সুপার হাবিবুর রহমান বলেন, এলাকার পরিস্থিতি শান্ত রয়েছে। ঘটনায় জড়িত সন্দেহে গণ্ডামারা এলাকার আবদুল খালেক, জহিরুল ইসলাম ও মহিউদ্দিনকে আটক করা হয়েছে। তবে কারা গুলি করেছে, তা তদন্ত শেষ না হওয়া পর্যন্ত বলা যাবে না।