মেইন ম্যেনু

বাংলাদেশি লেখক-ব্লগারদের যুক্তরাষ্ট্রে আশ্রয় দেয়ার আহ্বান

ইসলামী উগ্রবাদীদের হুমকির মুখে থাকা বাংলাদেশি লেখকদের জরুরি আশ্রয় দেয়ার জন্য যুক্তরাষ্ট্র সরকারের প্রতি আহ্বান জানিয়েছে কয়েকটি মানবাধিকার সংগঠন। মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী জন কেরির কাছে সোমবার এ ব্যাপারে একটি চিঠি পাঠিয়েছে পেন আমেরিকান সেন্টারের নেতৃত্বে আটটি মানবাধিকার সংগঠনের ওই জোট। এসোসিয়েট প্রেসের বরাত দিয়ে এ সংক্রান্ত একটি সংবাদ প্রকাশ করেছে বিবিসি বাংলা।

চিঠিতে স্বাক্ষরকারীদের মধ্যে হিউম্যান রাইটস ওয়াচ, রিপোর্টাস উইদাউট বর্ডারস এবং ফ্রিডম হাউজের মতো বিশ্বখ্যাত সংগঠনও রয়েছে।

এসোসিয়েট প্রেসের বরাত দিয়ে বিবিসি জানিয়েছে, চিঠিতে বলা হয়, বাংলাদেশে লেখক, ব্লগার আর প্রকাশকরা মৃত্যুর হুমকিতে রয়েছে। এ বছরই পাঁচজন নিহত হয়েছে আর অনেককে হত্যার হুমকি দেয়া হয়েছে। কিন্তু তাদের নিরাপত্তায় বাংলাদেশ সরকার যথেষ্ট ব্যবস্থা নেয়নি। উল্টো তাদের দেশ ছাড়ার পরামর্শ দিয়েছে। কয়েকজন লেখক ব্লগারকে গ্রেপ্তারও করা হয়েছে।

ওই চিঠিতে বাংলাদেশের পরিস্থিতিকে ‘সত্যিকারেই ভয়াবহ’ বলে বর্ণনা করে লেখক ও ব্লগারদের জীবন বাঁচাতে ‘হিউম্যানিটারিয়ান প্যারোল’ দেয়ার আহ্বান জানানো হয়েছে।

যুক্তরাষ্ট্রের অভিবাসন আইন অনুযায়ী, কোনো জরুরি পরিস্থিতিতে অন্য কোনো দেশ থেকে কাউকে সাময়িকভাবে যুক্তরাষ্ট্রে নিয়ে এসে আশ্রয় দেয়াকে ‘হিউম্যানিটারিয়ান প্যারোল’ বলে বর্ণনা করা হয়।
সম্প্রতি যুক্তরাষ্ট্র ভিত্তিক একটি সংস্থা, ম্যানেজমেন্ট সিস্টেমস ইন্টারন্যাশনালের একটি গবেষণা প্রতিবেদনে বলা হয়, বাংলাদেশে বরাবর ধর্মীয় সহিষ্ণুতা থাকলেও, সম্প্রতি সেখানে উগ্রবাদী প্রবণতা বাড়ছে। সেখানে একটি উচ্চশিক্ষিত, প্রযুক্তিতে দক্ষ এবং উচ্চ মধ্যবিত্ত শ্রেণির তরুণরা এ ধরণের জঙ্গিবাদী কর্মকাণ্ডে জড়িয়ে পড়ছে।

তবে এসব কর্মকাণ্ড তারা নিজে থেকেই করছে নাকি, আইএস বা আল-কায়েদার সঙ্গে তাদের সম্পর্ক রয়েছে, তা এখনো পরিষ্কার নয় বলে এসোসিয়েট প্রেসের প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়।