মেইন ম্যেনু

বাংলাদেশী দুই বিচারক পেলেন আন্তর্জাতিক স্থায়ী আদালতের সদস্যপদ

বিচারপতি মো. তোফাজ্জল ইসলাম ও বিচারপতি মো. আওলাদ আলী নেদারল্যান্ডের হেগে অবস্থিত আন্তর্জাতিক স্থায়ী সালিশি আদালতের সদস্যপদ লাভ করেছেন। এই প্রথমবার বাংলাদেশী বিচারকরা সন্মানজনক এই প্রতিষ্ঠানের সদস্যপদ লাভ করলেন। পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় রবিবার সন্ধ্যায় এই তথ্য জানায়।

জানা গেছে, ১৯০৭ সালের হেগ সম্মেলনের ৪৪ অনুচ্ছেদ অনুযায়ী, পরবর্তী ৬ বছরের জন্য বাংলাদেশী দুইজন বিচারককে আন্তর্জাতিক বিবাদের শান্তিপূর্ণ সমাধানের জন্য নিয়োগ দেওয়া হয়েছে। এই নিয়োগকে স্থায়ী সালিশ আদালতের আন্তর্জাতিক ব্যুরো স্বাগত জানিয়েছে।

পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মতে, এই নিয়োগ নেদারল্যান্ডের হেগের আইনী প্রতিষ্ঠানগুলোর সঙ্গে ঘনিষ্ঠ সম্পৃক্ততার মাধ্যমে বিশ্বশান্তি প্রতিষ্ঠায় বাংলাদেশ যে অব্যাহত প্রচেষ্টা চালাচ্ছে তারই প্রতিফলন।

বিচারপতি মো. তোফাজ্জল ইসলাম একজন সাবেক প্রধান বিচারপতি এবং বিচারপতি মো. আওলাদ আলী হাইকোর্ট বিভাগের একজন সাবেক বিচারপতি।

বিচারপতি তোফাজ্জল ইসলাম সংবিধানের পঞ্চম সংশোধনী বাতিল এবং জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের খুনিদের শাস্তির জন্য হাইকোর্টের দেওয়া রায় বহাল রাখাসহ বিভিন্ন দৃষ্টান্তমূলক বিচারের রায় প্রদান করেছেন।

অন্যদিকে, বিচারপতি আওলাদ আলী, তার পেশাগত জীবনে আইনজীবী হিসেবে অনেক বাণিজ্যিক সালিশি মামলা সফলতার সঙ্গে পরিচালনা করেছেন।

স্থায়ী সালিশী আদালত, দি হেগ এর একটি ঐতিহ্যবাহী স্থাপনা “পিস প্যালেস” এ অবস্থিত ১১৭ সদস্যবিশিষ্ট একটি আন্তঃরাষ্ট্রীয় প্রতিষ্ঠান। ১৮৯৯ সালে প্রতিষ্ঠার পর থেকে প্রতিষ্ঠানটি বিভিন্ন রাষ্ট্রের মধ্যে বিবদমান বিষয়সমূহের শান্তিপূর্ণ সমাধান এবং সালিশ পরিচালনা করে আসছে। আন্তর্জাতিক এই বিচারিক আদালত থেকে বাংলাদেশ এবং ভারতের মধ্যকার সমুদ্রসীমা সংক্রান্ত বিবাদের নিষ্পত্তি সাধিত হয়।