মেইন ম্যেনু

বাংলাদেশে পিস টিভির সম্প্রচার বন্ধে প্রজ্ঞাপন জারি

বাংলাদেশে পিস টিভির সম্প্রচার বন্ধে সোমবার (১১ জুলাই) প্রজ্ঞাপন জারি করেছে তথ্য মন্ত্রণালয়। আইনশৃঙ্খলা সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটি বাংলাদেশে পিস টিভির সম্প্রচার বন্ধের সিদ্ধান্ত নেয়ার পরদিন তথ্য মন্ত্রণালয় এ বিষয়ে প্রজ্ঞাপন জারি করলো।

তথ্য মন্ত্রণালয়ের যুগ্ম সচিব (টেলিভিশন) আখতারুজ্জামান এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

ঈদের ছুটির পর কার্যদিবসের প্রথম দিনে (রোববার, ১০ জুলাই) স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে আইনশৃঙ্খলা সংক্রান্ত মন্ত্রিসভার বৈঠকে দুবাইভিত্তিক বেসরকারি এ টেলিভিশনের সম্প্রচার বাংলাদেশে বন্ধের সিদ্ধান্তের বিষয়ে বিস্তারিত আলোচনা হয়। পরে ওই টেলিভিশনের সম্প্রচার বন্ধের কথা জানানো হয়।

প্রজ্ঞাপনে বলা হয়, ‘মন্ত্রিসভা কমিটির সিদ্ধান্তের প্রেক্ষিতে ডাউন লিংকের শর্ত ভঙ্গ করায় বিদেশি ফ্রি-টু-এয়ার টিভি চ্যানেল পিস টিভির ডাউন লিংকের অনুমতি বাতিল করা হল।’

এতে বলা হয়, ‘বাংলাদেশের ভেতরে পিস টিভির সব ধরনের সম্প্রচার বন্ধের ব্যবস্থা নিতে সংশ্লিষ্ট সবাইকে অনুরোধ জানানো হল।’

স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়, তথ্য অধিদপ্তর, বিটিভি ও কেবল অপারেটরদের সংগঠন কোয়াবকেও প্রজ্ঞাপনের অনুলিপি পাঠানো হয়েছে।

ভারতের ইসলামী বক্তা জাকির নায়েকের বিরুদ্ধে ‘জঙ্গিবাদে উৎসাহ যোগানোর’ অভিযোগ ওঠার পর রোববার (১০ জুলাই) মন্ত্রিসভা কমিটির বৈঠকে বাংলাদেশে তার প্রতিষ্ঠিত পিস টিভির সম্প্রচার বন্ধের এই সিদ্ধান্ত হয়।

একইদিন প্রেস ইনিস্টিটিউট অব বাংলাদেশ (পিআইবি) কার্যালয়ে টেলিভিশন মালিক ও প্রধান নির্বাহীদের সঙ্গে বৈঠক করেন তথ্যমন্ত্রী হাসানুল ইনু। সেখানে বক্তব্যে এ বিষয়ে আজ সোমবার (১১ জুলাই) চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত হওয়ার কথা জানান তিনি।

জাকির নায়েক পরিচালিত মুম্বাইভিত্তিক ইসলামিক রিসার্চ ফাউন্ডেশনের একটি প্রতিষ্ঠান পিস টিভি। এ টিভিতে ধর্ম নিয়ে আলোচনায় ইসলামের যে ব্যাখ্যা তিনি দেন, তা নিয়ে বিভিন্ন সময়ে বিতর্ক তৈরি হয়েছে।

গত ১ জুলাই গুলশানে বাংলাদেশের ইতিহাসে ভয়াবহতম জঙ্গি হামলায় জড়িতদের মধ্যে অন্তত দুই সদস্য সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে জাকির নায়েকের মত ইসলামী বক্তাদের বক্তব্য নিয়মিত অনুসরণ করতেন। তার ব্যাখ্যায় অনুপ্রাণিত হয়ে ভারতের বেশ কিছুসংখ্যক তরুণ আইএসে যোগ দিতে সিরিয়ায় পাড়ি জমিয়েছে বলেও খবর এসেছে।

এ বিষয়টি প্রকাশ্যে আসার পর জাকির নায়েকের বক্তব্য সম্পর্কে খোঁজ-খবর নিতে উদ্যোগী হয় ভারত সরকার। তদন্ত শুরু করে মহারাষ্ট্র রাজ্য সরকার জাকির নায়েকের প্রকাশিত বই, বক্তব্যের অডিও-ভিডিও সিডি। মুম্বাইয়ে তার অফিস ঘিরে মোতায়েন করা হয় পুলিশ।

ভারতের সম্প্রচারমন্ত্রী বেঙ্কাইয়া নাইডু শুক্রবার ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেসকে বলেন, ‘আমরা অভিযোগ তদন্ত করছি। কারণ এটা আমাদের জাতীয় নিরাপত্তা, সেই সঙ্গে সামাজিক সম্প্রীতির জন্যও হুমকি।’

এদিকে বাংলাদেশেও পিস টিভির সম্প্রচার বন্ধের দাবি জোরালো হয়ে উঠতে থাকে।