মেইন ম্যেনু

বাংলাদেশে রজতাভ দত্তের বিতর্কিত মন্তব্য!

টালিগঞ্জের বিখ্যাত অভিনেতা রজতাভ দত্ত সবখানেই ‘রনি দা’ নামেই পরিচিত। বিশেষ করে জি বাংলার জনপ্রিয় কমেডি শো মীরাক্কেলের বিচারক হিসেবেই তিনি ‘রনি দা’ নামে বেশি পরিচিতি লাভ করেন।

মূলত মন্দ মানুষের চরিত্রেই পর্দায় দেখা যায় হাসিখুশি উদার মনের এ মানুষটিকে। এখন তিনি বাংলাদেশে অবস্থান করছেন বাংলাদেশ ভারতের যৌথ প্রযোজনার ছবি ‘অঙ্গার’-এর শুটিং করতে।

এফডিসির মুক্তিযোদ্ধা চিত্রনায়ক জসিম ফ্লোরে টানা শুটিং করছেন। ফাঁকে ফাঁকে ‘মীরাক্কেল’-এর বাংলাদেশ প্রতিযোগীদের আমন্ত্রণে সাড়া দিচ্ছেন।

এবারের ঈদে মুক্তির জন্য প্রস্তুত ‘আশিকি’ ছবির একজন শিল্পী তিনি। বাংলাদেশের জাজ মাল্টিমিডিয়া ও ভারতের এস কে প্রোডাকশনের যৌথ প্রযোজনায় নির্মিত ‘আশিকি’ ছবিটি পরিচালনা করেছেন অশোকপতি ও এম এ আজিজ।

সোমবার ‘আশিকি’ ছবির পোস্টার প্রকাশনা অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন রজতাভ দত্ত। শুভেচ্ছা বক্তব্যের একপর্যায়ে তিনি জানান, ‘আশিকি’ বাংলাদেশ-ভারতের যৌথ প্রযোজনার প্রথম ছবি। আর ‘অঙ্গার’ ছবির জন্য এবারই প্রথম বাংলাদেশে আসা।

বাংলাদেশ, দেশের মানুষ, খাবার-দাবার, আদর-আপ্যায়ন, আতিথেয়তায় মুগ্ধ রজতাভ দত্তের কাছে এক সাংবাদিকের প্রশ্ন ছিল ‘আশিকি’ যদি তার যৌথ প্রযোজনার প্রথম ছবি হয় তাহলে দেওয়ান নাজমুল ও স্বপন সাহা পরিচালিত ‘সীমারেখা’ ছবিটি কি?

উত্তরে রজতাভ দত্ত বলেন, আমি যখন ‘সীমারেখা’ ছবিতে অভিনয় করি তখন জানতাম না এটা যৌথ প্রযোজনার ছবি। আমার টালিগঞ্জের স্বনামধন্য পরিচালক স্বপন সাহা আমাকে ‘সীমারেখা’ ছবির জন্য অফার করেন। আমাদের চলচ্চিত্র শিল্পের উন্নয়ন স্বপন সাহার বিরাট একটা ভূমিকা আছে। আমি তার ছবি বলেই ‘সীমারেখা’য় অভিনয় করি। গল্প, চিত্রনাট্য, চরিত্র কিছুই দেখিনি। যদি জানতাম যৌথ প্রযোজনার ছবি তাহলে করতাম কিনা সন্দেহ। যদি জেনে করতাম তাহলেও ‘আশিকি’ হতো আমার যৌথ প্রযোজনার প্রথম ছবি।

রজতাভ দত্তের এ বক্তব্যের পরিপ্রেক্ষিতে ‘সীমারেখা’ ছবির বাংলাদেশী প্রযোজক পরিচালক দেওয়ান নাজমুল মুঠোফোনে বলেন, ‘সীমারেখা’ ছবিটি আমি এবং স্বপন সাহা যৌথভাবে নির্মাণ করি। রজতাভ দত্ত ছবির নায়িকা রথির পিতার চরিত্রে অভিনয় করেছিলেন। এবং যৌথ প্রযোজনার ছবি হিসেবে ‘সীমারেখা’ বাংলাদেশ-ভারত উভয় দেশের অনুমতি নিয়ে নির্মিত হয়েছে।

তিনি বলেন, রজতাভ দত্তের মতো অভিনেতা যদি বলেন, ‘সীমারেখা’ যৌথ প্রযোজনার ছবি ছিল- এটা তিনি জানতেন না, তাহলে আমার অবাক হওয়া ছাড়া আর কিছুই করার নেই। তবে এটুকু বলতে চাই, তার মতো একজন বিখ্যাত অভিনেতার এমনটি বলা উচিত হয়নি। -মানবজমিন



« (পূর্বের সংবাদ)