মেইন ম্যেনু

বাংলাদেশ-ইংল্যান্ড ক্রিকেট ম্যাচে বিশ্বমানের নিরাপত্তা

বাংলাদেশ সফরে আসা ইংল্যান্ড ক্রিকেট দলের জন্য বিশ্বমানের নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন ডিএমপি কমিশনার আছাদুজ্জামান মিয়া।

তিনি বলেন, সিরিজ চূড়ান্ত হওয়ার আগে ইংল্যান্ড নিরাপত্তা পর্যবেক্ষকরা স্টেডিয়াম পরিদর্শন শেষে সন্তুষ্টি প্রকাশ করছিলেন। তাদের সঙ্গে যে ধরনের নিরাপত্তা দেয়ার সমঝোতা হয়েছিল তা নিশ্চিত করা হবে।

মঙ্গলবার বিকেল ৩টায় মিরপুরের শেরেবাংলা ক্রিকেট স্টেডিয়ামের ৪নং গেটের সামনে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে তিনি একথা বলেন। এর আগে পুরো স্টেডিয়ামের বাইরের নিরাপত্তা ব্যবস্থা পর্যবেক্ষণ করেন কমিশনার।

সংবাদ সম্মেলনে ডিএমপি কমিশনার বলেন, ক্রিকেট টিম মাঠে আসা-যাওয়ার সময় ভিভিআইপিদের যেভাবে নিরাপত্তা দেওয়া হয়, সেভাবে নিরাপত্তা দেওয়া হবে। মিরপুর ১০ গোল চত্বর থেকে স্টেডিয়াম পর্যন্ত যাতায়াত ও দোকানপাট বন্ধ থাকবে। ক্রিকেট ম্যাচের দর্শনার্থীরা ১, ৩, ৪ এবং ৫ নম্বর গেট দিয়ে প্রবেশ করতে পারবে। বিসিবি নিরাপত্তা সদস্যের বাইরে বিপুল সংখ্যক পুলিশ মোতায়েন থাকবে।

বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) স্টিকার ব্যতীত কোনো গাড়ি স্টেডিয়ামের ভেতর প্রবেশ করতে দেওয়া হবে না। জাল টিকিট ও বিনা টিকিটে প্রবেশ বন্ধে স্টেডিয়ামে ঢুকতে ও বের হতে দু’দফায় টিকিট চেক করা হবে। যাদের কাছে মেশিন রিডেবল টিকিট থাকবে, তারাই মাঠে প্রবেশ করতে পারবে।

নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে স্টেডিয়ামের ভেতরে সাদা পোশাকে পুলিশ সদস্যরা দায়িত্ব পালন করবেন। এছাড়া গোয়েন্দা সংস্থা, সিপি, ডিবি, পুলিশ এবং বিসিবির নিরাপত্তাকর্মীরা একসঙ্গে দায়িত্ব পালন করবেন বলেও জানান ডিএমপি কমিশনার।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিটের প্রধান ও ডিএমপি’র অতিরিক্ত কমিশনার মনিরুল ইসলাম, যুগ্ম কমিশনার (ট্রাফিক) ইমতিয়াজ আহমেদ, মিরপুর বিভাগের উপ-কমিশনার (ডিসি) মাসুদুর রহমানসহ ঊর্ধ্বোতন কর্মকর্তারা।