মেইন ম্যেনু

বাংলাদেশ ও মিয়ানমার পতাকা বৈঠক ॥ ১৫০জন বাংলাদেশীকে ফেরত প্রদান

বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ির ঘুনধুম সীমান্তে আজ সোমবার বেলা ১১টায় বিজিবি ও মিয়ানমারের সীমান্ত রক্ষি বাহিনী (বিজিপির) মধ্যে পতাকা বৈঠকের পর মিয়ানমার সীমান্ত থেকে উদ্ধারকৃত সাগরে ভাসমান অবস্থায় ২০৮ জন অভিবাসীর মধ্যে ১৫০ জনকে ফেরত দেয়া হবে বলে জানিয়েছেন বিজিবি।

সকাল সাড়ে ১০ টায় ঘুনধুম ঢেকিবুনিয়া সীমান্ত পয়েন্টে পতাকা বৈঠকটি অনুষ্ঠিত হবে বলে বিজিবি সূত্র জানিয়েছে। এদিকে বান্দরবানের ঘুনধুম সীমান্তে পতাকা বৈঠকের সব প্রস্তুতি সম্পন্ন হয়েছে বলে বিজিবি কর্মকর্তা জানিয়েছেন।

বিজিবি সুত্রে জানাগেছে, ফেরত দেয়া অভিবাসীর মধ্যে ৫৫ জন নরসিংদীর, কক্সবাজারের ৩০, ঝিনাইদহের ১২, বান্দরবানের ১০, চট্টগ্রামের ৭, ব্রাহ্মণবাড়িয়ার ৬, পাবনার ৫, সুনামগঞ্জ, বাগেরহাট ও চুয়াডাঙ্গার ৪, টাঙ্গাইলের ৩, নারায়ণগঞ্জ, রাজবাড়ী ও যশোরের ২ এবং নাটোর, চাঁদপুর ও হবিগঞ্জের ১ জন রয়েছে।

গত ২১ মে সাগরে ভাসমান অবস্থায় ওই ২০৮ জনকে উদ্ধার করে মিয়ানমারের নৌবাহিনী। পরে মিয়ানমারের পক্ষ থেকে দাবি করা হয়, এদের মধ্যে ২০০ জন বাংলাদেশী রয়েছেন। এর পরিপ্রেক্ষিতে বিজিবির নেতৃত্বে ১১ সদস্যের একটি প্রতিনিধিদল গত ২৪মে মিয়ানমার যাওয়ার কথা ছিল। কিন্তু মিয়ানমার কর্তৃপক্ষ উদ্ধারকৃতদের বাংলাদেশী দাবির পাশাপাশি তাদের ফেরত নিতে বললে ওই সফর স্থগিত করা হয়। এছাড়া উদ্ধারকৃতদের পূর্ণাঙ্গ তালিকা চেয়ে মিয়ানমারের সীমানা রক্ষী বাহিনীর কাছে চিঠি পাঠায় বিজিবি।

বিজিবি মিয়ানমার কতৃপক্ষের কাছে ২০০ জন বাংলাদেশীর তালিকা চেয়ে পাঠালে মিয়ানমার প্রথমে ত্রুটিপূর্ণ তালিকা পাঠায়। পরে আরো একটি তালিকা পাঠানো হলে তা থেকে ১৫০ জন বাংলাদেশীকে চিহ্নিত করা হয়। এদের আজ পতাকা বৈঠকের মাধ্যমে মিয়ানমার ফেরত দিচ্ছে।