মেইন ম্যেনু

বাংলাদেশ সুপার লিগের কোটি টাকার লোগো উন্মোচন

ভারতের আইপিএলের আদলে বাংলাদেশ চালু করে বিপিএল। আইপিএলের মতো ফুটবলেও ভারত চালু করেছে আইএসএল (ইন্ডিয়ান সুপার লিগ)।

আইপিএলের মতো আইএসএলও বেশ জনপ্রিয়তা অর্জন করেছে। এবার ভারতের মতো বাংলাদেশেও আয়োজিত হতে যাচ্ছে বিএসএল (বাংলাদেশ সুপার লিগ)। ইতিমধ্যে এই টুর্নামেন্টের জন্য ভেন্যু পরিদর্শন করা হয়েছে। সবকিছু ঠিকঠাক থাকলে আগামী নভেম্বরে মাঠে গড়াবে বাংলাদেশ সুপার লিগের প্রথম আসর।

তবে এর আগেই উন্মোচিত হয়েছে বাংলাদেশ সুপার লিগের (বিএসএল) লোগো। রোববার বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে সে উপলক্ষ্যে জমকালো এক অনুষ্ঠানের আয়োজন করে আয়োজকরা। যেখানে খরচ হয়েছে এক কোটি টাকারও ওপরে। জমকালো ফুটবলে এ ধরনের ব্যয়বহুল অনুষ্ঠান এবারই প্রথম।

ব্যয়বহুল লোগো উন্মোচন অনুষ্ঠানে ছিল আতশবাজির বর্ণিল ঝলকানি, লেজার-শোসহ আরো অনেক আকর্ষণীয় সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। ভিন্ন ধরনের একটি থিম সং এবং প্রমো উপস্থাপন করা হয়।

এই অনুষ্ঠান উপভোগের জন্য দর্শকদের কোনো টিকিট কাটতে হয়নি। বিনা টিকিটেই দর্শকরা উপভোগ করেছেন সুপার লিগের কোটি টাকার উদ্বোধনী অনুষ্ঠান। তবে এশিয়া কাপে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে বাংলাদেশের ক্রিকেট ম্যাচ থাকায় সেখানে ততটা দর্শক উন্মাদনা দেখা যায়নি। এক্ষেত্রে আয়োজকদের প্রচারেরও যথেষ্ঠ ঘাটতি ছিল বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা।

আগামী এপ্রিল মাসে বাংলাদেশ সুপার লিগের উন্মুক্ত বিডিং হবে। যেখানে আটটি বিভাগের জন্য ৮টি ফ্র্যাঞ্চাইজিকে বেছে নেয়া হবে, যারা দীর্ঘদিন ফুটবলের সঙ্গে থাকবে। মূলত দেশের ফুটবলকে বাণিজ্যিকীকরণ করার জন্যই এই লিগ আয়োজন করা হচ্ছে। ফুটবলারের সংকট এড়াতে প্রতিটি ফ্র্যাঞ্চাইজিকে বাধ্যতামূলকভাবে একটি করে একাডেমি চালাতে হবে।

আগামী নভেম্বরে ৮টি ফ্র্যাঞ্চাইজি দল নিয়ে আয়োজিত হবে বাংলাদেশ সুপার লিগ। দেশের ৮টি ভেন্যুতে হোম এবং অ্যাওয়ে ভিত্তিতে লিগের ম্যাচগুলো অনুষ্ঠিত হবে। বাংলাদেশ সুপার লিগের ম্যাচগুলো বাংলাদেশসহ ১৫০টি দেশে সম্প্রচার করা হবে।

বাংলাদেশ সুপার লিগের প্রথম আসর যাতে সফলভাবে সম্পন্ন করা যায় সে লক্ষ্যে জোর প্রস্তুতি চলছে।



« (পূর্বের সংবাদ)