মেইন ম্যেনু

বাগমারায় মসজিদে আত্মঘাতি বোমা হামলাকারী সনাক্ত, সহযোগী বন্ধুকযুদ্ধে নিহত

সরকার দুলাল মাহবুব, রাজশাহী থেকে : রাজশাহীর বাগমারার সৈয়দপুর গ্রামে আহমদিয়া সম্প্রদায়ের মসজিদে আত্মঘাতি বোমা হামলার ঘটনায় জড়িত জঙ্গি সংগঠন জেএমবি’র সদস্য জামাল উদ্দিন পুলিশের ক্রসফায়ারে নিহত হয়েছে।

মঙ্গলবার বিকেলে সংবাদ সম্মেলন করে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন পুলিশ সুপার নিশারুল আরিফ।

নিহত জামাল উদ্দিন চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলার শিবগঞ্জ উপজেলার লক্ষ্মীপুর কালিনগর গ্রামের তাবজুল হকের ছেলে। সে জেএমবি’র আত্মঘাতি টিমের সদস্য ছিল। সোমবার দিনগত রাত সাড়ে তিনটার দিকে রাজশাহীর গোদাগাড়ী উপজেলার ফরাদপুর চাপড়া এলাকায় পুলিশের সঙ্গে ক্রসফায়ারে জামাল মারা যায়। গোদাগাড়ী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এসএস আবু ফরহাদ এ তথ্য জানিয়েছেন।

তিনি জানান, ভোর ৫টার দিকে ময়নাতদন্তের জন্য জামালের মরদেহ রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতালের মর্গে নেয়া হয়।

এর আগে সোমবার রাত সাড়ে ১১টার দিকে রাজশাহী জেলা পুলিশের একটি দল চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর উপজেলার বাবুডাইং এলাকা থেকে জামালকে গ্রেপ্তার করে। তার স্বীকারোক্তি অনুযায়ী, গোদাগাড়ীর ফরাদপুরে অভিযান চালানোর জন্য যাওয়ার সময় এই ক্রসফায়ারের ঘটনা ঘটে।

এর আগে বাগমারায় মসজিদে আত্মঘাতি বোমা জড়িত থাকার কথা জামাল পুলিশের কাছে স্বীকার করেছে। সে জানায়, আত্মঘাতী তারেক চাঁপাইনবাবগঞ্জের শিবগঞ্জ উপজেলার রূপনগর গ্রামের আবু সালেকের ছেলে। সে চাঁপাইনবাবগঞ্জ পলিটেকনিক ইনস্টিটিউটের ছাত্র ছিলো। রাতেই অভিযান চালিয়ে পুলিশ তারেকের মা তসলিমা বেগমকে আটক করেছে।

মঙ্গলবার বিকেলে পুলিশ সুপার নিশারুল আরিফ সংবাদ সম্মেলনর মাধ্যমে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

প্রসঙ্গত, গেল বছর ২৫ ডিসেম্বর জুমার নামাজের সময় মসজিদে আত্মঘাতি বোমায় নিহত হয় তারেক। তারেকের পরিচয় শনাক্ত ও তার সহযোগী জামালকে ধরিয়ে দিতে রাজশাহী জেলা পুলিশের পক্ষ থেকে লাখ টাকা পুরস্কারও ঘোষণা করা হয়েছিল।