মেইন ম্যেনু

বাঘের গর্জনে বানরের হার্ট এ্যাটাক, একসঙ্গে ১২ বানরের মৃত্যু!

এক ডজন বানর একই সঙ্গে মৃত্য বরণ করেছে। মৃত্যুর আগে বানরগুলোর হৃদযন্ত্রের ক্রিয়া বন্ধ হয়ে গিয়েছিল। আর পুরো ব্যাপারটি ঘটেছিল হটাৎ বাঘের প্রচন্ড গর্জনে বানরগুলো ভয় পেয়ে লাফিয়ে উঠার কারণে। এক সংঙ্গে বারটি বানরের মৃত্য কিভাবে হলো আর বাঘই বা হটাৎ এত বিকট গর্জন করে উঠল কেন? এবিষয়ে রীতিমত তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছিল।

প্রথমত এলাকাবাসী হটাৎ এতগুলো বানরের মৃতদেহ দেখে বুঝে উঠতে পারছিল না কিভাবে একসঙ্গে এতগুলো বানরের মৃত্যু হলো। অনেকেই ধারণা করেছিল হয়ত তাদের খাদ্যে বিষক্রিয়ার কারণেই সেগুলোর মৃত্যু হয়েছে। তবে বানরগুলোর মৃত দেহের ময়না তদন্ত করা হলে, বিষক্রিয়ার কোনো লক্ষন খুজে পাওয়া যায়নি। পরে অধিকতর পরীক্ষা নিরীক্ষার ব্যবস্থা করা হয়। তারপর আসল কারণ জানা যায়।

কান্ডটি ঘটেছে ভারতের উত্তর প্রদেশে। ভারতের উত্তরাঞ্চলের এই প্রদেশের কোতোয়ালী মোহাম্মাদী এলাকায় পশু বিষেশজ্ঞদের নিয়ে গঠিত একটি কমিটি তদন্ত পূর্বক জানায় যে, প্রচন্ড ভয় পাওয়ার কারণেই বানরগুলোর হুদযন্ত্রের ক্রিয়া বন্ধ হয়ে গিয়েছিল।

ভ্যাটেরিনারি ডাক্তার সঞ্জিব কুমার বলেন, ময়না তদন্তের রিপোর্ট এবং অন্যান্য পরীক্ষায় এটা নিশ্চিত হওয়া গেছে যে, হৃদযন্ত্রের ক্রিয়া বন্ধ হয়ে বানরগুলোর মৃত্যু হয়েছে। আর এই এলাকায় যেহেতু প্রায়ই বাঘ ঘোরাফেরা করে, তাই বাঘের গর্জনেই তারা ভয় পেয়েছিল। বনবিভাগের কর্মীরা বানরগুলোর মৃতদেহ উদ্ধার করে। কিন্তু দু:খজনকভাবে তারা পলিথিন ব্যগে করে মৃতদেহগুলো পরিবহন করেছিল। গ্রামবাসীরাও নিশ্চিত করে যে, ওই এলাকায় প্রায়ই বাঘ এসে ঘোরাফেরা করে। আর বানরগুলোর মৃত্যুর আনুমানিক সময়ে বাঘের গর্জন শোনা গিয়েছিল।-সূত্র: metro.co.uk






মন্তব্য চালু নেই