মেইন ম্যেনু

বাণিজ্য মেলায় পাটজাত পণ্যের সমাহার

সোনালি আঁশের জুতা থেকে শুরু করে ল্যাপটপ ব্যাগ, মানিব্যাগ, চাবির রিঙ সবই তৈরি হচ্ছে পাট দিয়ে। আর এ সবের বিশাল সমাহার নিয়ে প্যাভিলিয়ন সাজানো হয়েছে ঢাকা আন্তর্জাতিক বাণিজ্যমেলায়।

মেলার মূল ফটক দিয়ে প্রবেশের পর পূর্বপ্রান্তে পাটজাত পণ্যের প্যাভিলিয়ন সাজিয়েছে জুট ডাইভারসিফিকেশন প্রমোশন (জেডিপিসি)। এখানে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান তাদের প্রস্তুত করা পাটজাত সামগ্রী নিয়ে পসরা সাজিয়েছে।

শুক্রবার সাপ্তাহিক ছুটির দিনে মেলা ঘুরে দেখা যায়, পাটজাত পণ্যের প্রতি মানুষের আগ্রহের কমতি নেই। এখানকার স্টলে নানা সাইজ ও রঙের ল্যাপটপের ব্যাগ রয়েছে। দাম ২ হাজার ১০০ টাকা। আইপ্যাডের ব্যাগ ৯০০ টাকায়। দুই পণ্যেই ২০ থেকে ৩০ শতাংশ ছাড় দেওয়া হচ্ছে।

এ ছাড়া আছে ফুলের টবের বাস্কেট ১৫০ টাকায়, সিকা ৭০ টাকায়, টিফিন বক্স ৩০০ টাকায়, ওড়না ৪৫০ টাকায়, পাপোশ ১৫০ টাকায়, টেবিল ম্যাট ৪০০ টাকায় বিক্রি করছে ক্রিয়েটিভ প্রা. লিমিটেড। এ ছাড়া বিভিন্ন ডিজাইনের শপিং ব্যাগ পাওয়া যাচ্ছে ২০০ থেকে ১ হাজার টাকায়।

জুটেক্স-এর স্টলে গিয়ে দেখা যায়, ল্যাপটপের ব্যাগ বিক্রি হচ্ছে ২০ শতাংশ ছাড় দিয়ে। এ ছাড়া জুতা ১ হাজার ২০০ টাকায়, স্যান্ডেল ২০০ টাকায়, মানিব্যাগ ৩০০ থেকে ৫০০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। আবার কাঁধে ঝোলানো ব্যাগ পাওয়া যাচ্ছে ৩০০ থেকে ৩৫০ টাকায়, অফিস ব্যাগ ৭৫০ টাকায়। এখানে ছেলেদের জুতা বিক্রি হচ্ছে ৮০০ থেকে ১২০০ টাকায়। আর নারীদের স্যান্ডেল পাওয়া যাচ্ছে ২০০ থেকে ২০০০ টাকায়।

বিক্রয়কর্মী নয়ন বলেন, তারা পাটজাত বিভিন্ন রকমের ব্যাগ রপ্তানি করে থাকেন। দেশের বাজারে তাদের পণ্য তেমন পাওয়া যায় না। তাই পণ্যের পরিচিতি বাড়াতে মেলায় স্টল দেওয়া হয়েছে।

ভালো মানের অফিসিয়াল ব্যাগ ৩ হাজার ৭০০ টাকায়, স্পোর্টস ব্যাগ ৭০০ টাকায় বিক্রি করছে প্রতিষ্ঠানটি। ল্যাপটপ ব্যাগ বিক্রি করছে ৬৫০ থেকে ২ হাজার ২০০ টাকায়। এ ছাড়া সাইড ব্যাগ ৩৫০ থেকে ৪৫০ টাকায় এবং ফাইল ব্যাগ ৪৫০ থেকে ৭০০ টাকায়।

বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রী নাদিয়া আক্তার জানান, পাটের পণ্যগুলো টেকসই হয়। আর দেখতেও আলাদা। তাই ব্যাগ কেনার জন্য এই প্যাভিলিয়নে এসেছেন।