মেইন ম্যেনু

বাবার ১৫তম জন্মদিন, আর ছেলের পঞ্চম

ফ্রেড শেকফে পালন করতে যাচ্ছেন তাঁর ১৫তম জন্মদিন। আর তাঁর ছেলে এরিক পালন করবেন তাঁর পঞ্চম জন্মদিন। তবে দুজনেরই কাউকে দেখতে ১৫ বা পাঁচ বছর বয়সী মনে হয় না।

ফ্রেডকে দেখে মনে হয় পঞ্চাশোর্ধ এবং ছেলে এরিককে অন্তত ২০ বছর বয়সী লাগে। তবে কীভাবে তাঁরা ১৫তম ও পঞ্চম জন্মদিন পালন করছেন?

টাইম সাময়িকী জানিয়েছে, ফ্রেড ও এরিক উভয়েরই জন্মদিন আগামী সোমবার, ২৯ ফেব্রুয়ারি অর্থাৎ লিপ ইয়ারে। ফেব্রুয়ারি মাস সাধারণত হয় ২৮ দিনে। তবে প্রতি চার বছরে একবার ফেব্রুয়ারি ২৯ দিনে হয়। একে বলা হয় লিপ ইয়ার। এর মানে হলো প্রতি চার বছরে ফ্রেড ও এরিক জন্মদিন পেয়েছেন একটি। সেই হিসাবে ফ্রেডের প্রকৃত বয়স ১৫ এর চারগুণ অর্থাৎ ৬০। একই হিসাবে এরিকের বয়স পাঁচের চারগুণ মানে ২০। বাবা ও ছেলের উভয়েরই লিপ ইয়ারে জন্মদিনের ঘটনা প্রতি ২১ লাখে একটি দেখা যায়।

ফ্রেডের জন্ম ইরানে। ১৯৭৯ সালে যুক্তরাষ্ট্রে যাওয়ার পর তিনি নিজের বয়সের অস্বাভাবিকতার বিষয়টি জানতে পারেন। যুক্তরাষ্ট্রের কর্মকর্তারা লিপ ইয়ারে জন্মের বিষয়টি তাঁকে বুঝিয়ে দেন।

ফ্রেড শেকফে হাফিংটন পোস্টকে বলেন, ১৯৯৬ সাল ছিল লিপ ইয়ার। ওই বছর ২৯ ফেব্রুয়ারি জন্ম নেয় তাঁর সন্তান এরিক। চিকিৎসকের ভাষায় এটি ছিল তাঁর জন্মদিনের উপহার। প্রতি চারবছরে একবার সন্তান জন্মদিন পালন করবে তাঁরই জন্মদিনে।

ইউনিভার্সিটি অব ক্যালিফোর্নিয়ার শিক্ষার্থী এরিক শেকফে বলেন, বাবার সঙ্গে অদ্ভূত একটি জন্মদিন পাওয়া মজার বিষয়। তবে, প্রতি তিন বছর পর পর ২৯ ফেব্রুয়ারি জন্মদিন পালন বেশ ঝামেলারও বটে। অনেক সময়ই বন্ধুবান্ধব তাঁকে নিয়ে কৌতুক করেন। ২৮ ফেব্রুয়ারি বা ১ মার্চ জন্মদিন পালন করতে বলেন তাঁরা। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমেও তাঁর জন্মদিন অনেকে ধরতে পারে না। তবে একবার কেউ জানলে তা ভোলেও না। এরিক সর্বশেষ জন্মদিন পালন করেছেন ২০১২ সালে।