মেইন ম্যেনু

বারো মাস ফুল ফুটবে সার্ক ফোয়ারায়

তিন দশকেরও বেশি সময় পর রাজধানীর কারওয়ানবাজার মোড়ের সার্ক ফোয়ারার সংস্কার কাজ শুরু হয়েছে। ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের (ডিএনসিসি) আওতাধীন এ সার্ক ফোয়ারাটি ১৯৮৫ সালে প্রথম সার্ক শীর্ষ সম্মেলন উপলক্ষে তৈরি করা হয়। সম্পূর্ণ স্টিলের তৈরি এ ফোয়ারাটির নির্মাতা ছিলেন শিল্পী নিতুন কুন্ডু।

পাঁচ তারকা সোনারগাঁও প্যান প্যাসিফিক হোটেল সংলগ্ন এ ফোয়ারাটি এক সময় পথচারীদের দৃষ্টি আকর্ষণ করলেও সুষ্ঠু রক্ষণাবেক্ষণের অভাব, অযত্ন ও অবহেলায় এটি শুধুমাত্র নামেই সার্ক ফোয়ারা হয়েছিল। নগরবাসি শেষ কবে সার্ক ফোয়ারাটি চালু দেখেছে তা নিশ্চিত করে বলতে পারবে না।

ডিএনসিসির প্রধান বর্জ্য ব্যবস্থাপনা কর্মকর্তা কমডোর এম এ রাজ্জাক জানান, ৩২ বছর আগে নির্মিত সার্ক ফোয়ারাটিতে সম্প্রতি সংস্কার কাজ শুরু হয়েছে। ফোয়ারাটির চৌহদ্দিতে চওড়া সবুজ বেস্টনি গড়ে তোলা হচ্ছে। ভেতরে গোলাকার ফুলের বিছানা থাকবে। বছরের ৩৬৫ দিনই মৌসুমী ফুল ফুটবে এখানে। লাইটিংসহ প্রয়োজনীয় সংস্কারের পর ফোয়ারাটি প্রতিদিন সকাল ও সন্ধ্যায় চালু করা হবে।

তিনি জানান, ওজোন ব্লু লিমিটেড নামে একটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠান সংস্কারের যাবতীয় ব্যয় বহন করবে। ইতোমধ্যেই প্রতিষ্ঠানটির সঙ্গে ডিএনসিসির চুক্তি হয়েছে। চুক্তি অনুযায়ী তারা সার্বিক ব্যয় ও রক্ষণাবেক্ষণ করার বদলে চারটি এলইডি বিজ্ঞাপন বোর্ড ব্যবহারের সুযোগ পাবেন। সংস্কার শেষে সার্ক ফোয়ারাটির দৃষ্টিনন্দন সৌন্দর্যে গোটা এলাকার পরিবেশ বদলে যাবে।

সোমবার সরেজমিন পরির্দশনকালে দেখা গেছে, ইতোমধ্যেই সার্ক ফোয়ারাটির সংস্কার কাজ শুরু হয়ে গেছে। সার্ক ফোয়ারা চত্বরের চারদিক দিয়ে টিনের বেড়া দিয়ে ভেতরে স্থাপনা ভাঙচুরের কাজ চলছে।

কর্তব্যরত ট্রাফিক পুলিশ জানান, তিন চারদিন আগে সংস্কারের কাজ শুরু হয়।

শাহবাগ, ফার্মগেট, পান্থপথ ও হাতিরঝিলগামী চার রাস্তার এ মোড়ের এ চত্বরে সংস্কার কাজ শুরু হওয়ায় ট্রাফিক পুলিশের দায়িত্ব পালনে কিছুটা সমস্যার সৃষ্টি হচ্ছে। রোববার রাতে দেখা গেছে টিন দিয়ে ঘেরা বেস্টনির ভেতরে দাঁড়িয়ে ট্রাফিক পুলিশ যানবাহন নিয়ন্ত্রণ করছেন।

ডিএনসিসির একটি সূত্র জানায়, গত ১২ জুন ভোরে একটি দ্রুতগামী ট্রাক নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ফোয়ারার বেদি ভেঙে ফেলে। এরপর ডিএনসিসি সার্ক ফোয়ারাটির সংস্কার কাজে পরিকল্পনা শুরু করে।

ডিএনসিসির প্রধান বর্জ্য ব্যবস্থাপনা কর্মকর্তা কমডোর এম এ রাজ্জাক জানান, আগামী দুই মাসের মধ্যেই সার্ক ফোয়ারার সংস্কার কাজ শেষ হবে বলে আশা করছেন।






মন্তব্য চালু নেই